আন্তর্জাতিকমধ্যপ্রাচ্য

কুয়েতে ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারে সমুদ্র সেতু

কুয়েতে নতুন একটি মেগাসিটি তৈরির জন্য, দুটি দ্বীপ অঞ্চলের সাথে সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। আর এজন্য ব্যয়বহুল সমুদ্র সেতু নির্মাণ করেছে, উপসাগরীয় অঞ্চলের এ দেশটি। এ সেতুটির দৈর্ঘ্য ৩৬ কিলোমিটার। যার নির্মাণ খরচ ধরা হয়েছে প্রায় ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার।

দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্ডাই ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন কোম্পানি ও স্থানীয় কন্ট্রাক্টিং কোম্পানির যৌথ কাজের মাধ্যমে, চার বছরে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়। বর্তমানে অনেকটাই দৃষ্টিনন্দন হয়ে উঠেছে শেখ জাবের কোজওয়ে নামের সমুদ্র এ সেতুটি।

কুয়েত সিটি থেকে শেখ জাবের কোজওয়ে সেতু অতিক্রম করে সুবিয়া দ্বীপ অঞ্চল ৩০ মিনিটের দূরত্ব। যদিও সেতু নির্মাণের পূর্বে এ দ্বীপ অঞ্চলে যেতে নৌপথে প্রায় দুই ঘণ্টা সময় লাগতো।

কুয়েত সরকারের নিকট ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় এ দ্বীপ অঞ্চলেই নির্মাণ হতে যাচ্ছে ১শ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে, একটি মেগা-সিটি। সেতু নির্মাণের পর সবচেয়ে ইতিবাচক যে দিকটি দেখছে কুয়েত সরকার, সেটি হচ্ছে গালফ অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে তাদের বাণিজ্যিক যোগাযোগের সময় আরো এক ঘণ্টা কমে এসেছে।

সমুদ্র সেতু নির্মাণের পর কুয়েত সিটি অঞ্চলগুলোর সাথে সুবিয়া ও বুবিয়ান দ্বীপের সংযোগ স্থাপন হয়েছে। ফলে, এখানে প্রতিদিনই স্থানীয় ও প্রবাসী দর্শনার্থীদের ভীড় বাড়ছে। সমুদ্র সেতু ও সুবিয়া দ্বীপ অঞ্চল ভ্রমণে যাওয়া প্রবাসী বাংলাদেশীরা, কুয়েতের দীর্ঘতম সেতুর দৃষ্টিনন্দন দৃশ্য দেখে, নিজেদের ভালো লাগার কথা জানান।

বিশ্বের চতুর্থতম এ সেতুর দৃষ্টিনন্দন দৃশ্য সবচেয়ে বেশি মনোরম পরিবেশ হয়ে থাকে, রাতের আঁধারে। কুয়েতের সাবেক আমীর শেখ জাবের আল সাবাহ, উপসাগরীয় যুদ্ধের সময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায়,তার নামের নামকরণে শেখ জাবের কোজওয়ে সেতু করা হয়েছে।

আ হ জুবেদ, কুয়েত প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close