অন্যান্যবাংলাদেশ

ক্রান্তিলগ্ন পার করে সুদিনের অপেক্ষায় দেশের বীমা শিল্প

পর্ব-১

দেশের অর্থনৈতিক অবকাঠামো কতটুকু মজবুত তার কিছুটা নির্ভর করে সেই দেশের বীমা শিল্পের উপর। বাংলাদেশের বীমা প্রতিষ্ঠানের ক্রান্তিলগ্ন পার হয়ে সুদিনের অপেক্ষায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইউএমপির  মাধ্যমে  গঠিত Digital Policy Repository কারণে আগামী ১ বছরের মধ্যে বীমার শিল্পের সুফল পেতে শুরু করবেন গ্রাহকেরা।

বাংলাদেশে বেশ কয়েক বছর ধরেই বীমা শিল্পের প্রতি জনগণের আস্থা খুব একটা আশাব্যঞ্জক নয়। বিগত সরকারের উদ্যোগ ও জবাবদিহিতার অভাব এবং নানাবিধ আর্থিক অনিয়মের কারণে কাংখিত মাত্রায় বিকশিত হয়নি বীমা শিল্প।

আস্থা ফিরিয়ে আনতে বর্তমান সরকার বীমা আইন ২০১০ প্রণয়ন, বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ গঠন এবং জাতীয় বীমা নীতি ২০১৪ জারিসহ বেশকিছু পদক্ষেপ হাতে নিলেও তা অন্ধকার সুরঙ্গপথে আলোর ঝলকানির মত। সরকারের নেয়া এসব কার্যকরী পদক্ষেপে আলোর দিশা পেয়েছে বীমা কোম্পানীগুলো। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের বীমা কোম্পানীগুলো আরো সামনের দিকে এগিয়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, সঠিক তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপনার মাধ্যমে বীমা সম্পর্কে ব্যাপক গণসচেতনতা তৈরি অত্যন্ত জরুরী বলে মনে করেন বাংলাদেশ ইন্সুরেন্স এসোসিয়েশন এর প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন।

দেশের বেশিরভাগ বীমা প্রতিষ্ঠানগুলো ইউএমপি এর মাধ্যমে ইতোমধ্যে ডাটা প্রেরণ কার্যক্রম শুরু করছে। এতে বীমা প্রতিষ্ঠান সমূহের স্বচ্ছতা, ডিজিটালাইজেশনে সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং পলিসি, গ্রাহক পর্যায়ে আস্থা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে মনে করছেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা।

শাহরিয়ার রাজ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close