অন্যান্যবাংলাদেশ

সীমিত আকারে চালু থাকছে ব্যাংকিং সেবা

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সীমিত আকারে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু অব্যাহত থাকবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, নির্দিষ্ট কিছু শাখায় সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত নগদ জমা ও উত্তোলন করা যাবে।

লেনদেন-পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম শেষ করার জন্য ব্যাংক খোলা থাকবে বেলা তিনটা পর্যন্ত। সরকারি অফিস খুলবে ১২ এপ্রিল। এ পর্যন্ত সীমিত আকারেই চলবে ব্যাংক সেবা।

৯ এপ্রিল পর্যন্ত এভাবেই চলবে নির্দিষ্ট কিছু শাখার ব্যাংক সেবা। আজ দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যাংকসেবা চালু ছিল, শুধু নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য অনলাইন সুবিধা থাকা ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের লেনদেনের সার্বিক সুবিধা নিশ্চিত করে শাখাগুলোর মধ্যে দূরত্ব বিবেচনায় নিয়ে প্রয়োজনীয়সংখ্যক শাখা খোলা রাখা যাবে।

অনলাইন সুবিধা ছাড়া ব্যাংকের শাখাগুলো শুধু নগদ জমা ও উত্তোলনের জন্য খোলা রাখা যাবে। শুধু জরুরি বৈদেশিক লেনদেনের জন্য এডি শাখাগুলো খোলা রাখা যাবে। পাশাপাশি ডিডি, পে–অর্ডার ইস্যু, ট্রেজারি চালান জমা, চেক ক্লিয়ারিং সেবা চালু থাকবে।

এটিএম ও কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন চালু রাখার সুবিধার্থে এটিএম বুথগুলোয় পর্যাপ্ত নোট সরবরাহ রাখতে হবে এবং সার্বক্ষণিক চালু রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাংকগুলোয় নগদ উত্তোলন ছাড়া অন্য ক্ষেত্রে চাপ নেই বললেই চলে। ব্যাংকগুলো নিজ উদ্যোগে কর্মী কমিয়েও এনেছে। বেশির ভাগ ব্যাংকেই কর্মীদের দুই ভাগে ভাগ করে অফিস করতে বলা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এরপর ছুটি বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল করা হয়। ফলে সরকারি অফিস খুলবে ১২ এপ্রিল। এ সময় পর্যন্ত সীমিত আকারেই চলবে ব্যাংক সেবা।

সরকারি ছুটির সময় রাজধানীর শাখাগুলোতে ভিড় না থাকলেও জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ভালো গ্রাহক আসছে। এর ফলে অনেক সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যাচ্ছে না। এমন অনেক ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে।

বাংলা টিভি/রাসেল মাতুব্বর

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close