দেশবাংলা

নৌ-রুটে দক্ষিণবঙ্গমুখী মানুষের চাপ

শুক্রবার সকাল থেকেই শিমুলিয়া ঘাটে চাপ দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সাথে বেড়েছে দক্ষিণবঙ্গগামী ছোট গাড়ির চাপ। শতশত লোক এভাবে ফেরিতে গাদাগাদি করে পার হওয়ায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

শুক্রবার সকালে শিমুলিয়া ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, শত শত লোক ছুটছে দক্ষিণবঙ্গের দিকে। ফেরির অপেক্ষায় পল্টুনের উপর দাঁড়িয়ে আছে হাজারো লোক। যখনই কোন ফেরি আসছে, তখনই লোকজন হুমড়ি খেয়ে ছুটছে ফেরিতে উঠতে। গাদাগাদি করে তারা ফেরিতে দাঁড়িয়ে পদ্মা পারি দিচ্ছে।

লোকজনের চাপ এতোটাই বেশী যে, গাড়ি পর্যন্ত ঠিকমত ফেরিতে উঠতে পারছিল না। বাস বন্ধ থাকায় ঢাকা থেকে যাত্রীরা মাইক্রো বাস, প্রাইভেটকার, লেগুনা, মোটর সাইকেল ও উবারের অফলাইনের গাড়িতে করে শিমুলিয়া ঘাটে আসছে। আর শিমুলিয়া ঘাটে লঞ্চ সিবোট বন্ধ থাকায় যাত্রীরা পার হচ্ছে ফেরিতে।  তাই দক্ষিণবঙ্গ মুখী গাড়ির লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘায়িত হচ্ছে।

সরকার সাধারণ ছুটি বাড়িয়েছে। গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি ও দোকানপাটও পুরোপুরি না খোলায় লোকজন এখন বাড়ি ছুটছে। তাছাড়া সরকার ঘোষণা করেছে ঈদে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করতে হবে, বাড়ি যাওয়া যাবে না এজন্য লোকজন আগেই ছুটছে বাড়ির উদ্দেশে।

বিআইডব্লিউটিসি’র শিমুলিয়া ঘাটস্থ এজিএম মো. শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, ১৩টি ফেরি চলাচল করলেও দক্ষিণবঙ্গ মুখী গাড়ি ও যাত্রীর চাপে লোডিং আনলোডিংয়ে সমস্যা হচ্ছে। পল্টুনে হ-য-ব-র-ল অবস্থার সৃষ্টি হওয়ায় এ সমস্যা দেখা দিচ্ছে। তাছাড়া করোনা ভয়ে স্টাফরা ঠিক মত কাজ করতে পারছে না।  তবে আজ দক্ষিণবঙ্গ মুখী যাত্রীর ঢল নেমেছে।

বাংলাটিভি/দেশবাংলা

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close