বিশ্ববাংলা

মানবপাচার রোধে বাংলাদেশের উন্নতি: যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেদন

যুক্তরাষ্ট্রের মানবপাচার সূচকে একধাপ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের। তৃতীয় থেকে দ্বিতীয় ধাপে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বৃহষ্পতিবার রাতে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর থেকে ট্রাফিকিং ইন পারসন (টিআইপি) নামে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

এতে বলা হয়, মানবপাচার বন্ধে নানামুখি কার্যকর ব্যবস্থা নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। এ বিষয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, সবার সহযোগিতা ছাড়া দেশ থেকে মানবপাচার বন্ধ সম্ভব নয়।

দেশের অভ্যন্তরে ও বিদেশে বিভিন্ন মানবপাচারের ঘটনার সঙ্গে বাংলাদেশিদের জড়িত থাকার কারণে এবং দেশের ভেতরে এ ধরনের অপরাধের বিচারে অপর্যাপ্ত ব্যবস্থার কারণে গত তিন বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের মানবপাচার রিপোর্টে তৃতীয় স্তরের নজরদারির তালিকায় ছিল বাংলাদেশ।

এ বছর পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় দ্বিতীয় স্তরে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের উপদেষ্টা ইভাঙ্কা ট্রাম্প ট্রাফিকিং ইন পারসন- টিআইপি নামে এই প্রতিবেদন আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেন।

এতে বলা হয় মানবপাচার বন্ধে নানামুখি কার্যকর ব্যবস্থা নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। এর পাশাপাশি মানবপাচার মামলার নিষ্পত্তি এবং ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচার নিশ্চিত করা হয়েছে। ফলে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।

এ নিয়ে এক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে আবদুল মোমেন বলেন- এই অর্জনের পেছনে শুধু পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একার কৃতিত্ব না, সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই অগ্রগতি। এছাড়াও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মতে মানবপাচারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তুলতে না পারলে তা পুরোপুরি বন্ধ করা সম্ভব নয়। এ সময়, জেনেশুনে অবৈধভাবে বিদেশে না পাঠাতে সবার প্রতি আহ্বানও জানান ড. মোমেন।

আসাদ রিয়েল, বাংলাটিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close