জনদুর্ভোগবাংলাদেশবিশ্ববাংলা

আর্থিক ক্ষতি পূরণের দাবি ইতালি ফেরত প্রবাসীদের

ইতালির রোম বিমানবন্দর থেকে ঢাকায় ফিরিয়ে দেয়া প্রবাসীরা, কাতার এয়ারওয়েজের সেই ফ্লাইটে যাতায়াতের আর্থিক ক্ষতি পূরণের দাবি জানিয়েছেন। শুক্রবার থেকে ওই ১৪৭ জন আশকোনা হজক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনে আছেন। এদিকে, সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ বলছে, সমন্বয়হীনতায় জন্য কাতার এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষকেও এর দায়ভার নিতে হবে।

করোনার প্রাদুর্ভাবের সময় বাংলাদেশে ছুটিতে আসা প্রবাসী কর্মীরা সম্প্রতি ইতালীতে ফিরতে শুরু করেন। এরমধ্যে কিছু কর্মী সেখানে যাওয়ার পর নির্ধারিত কোয়ারেন্টিনে না থেকে কাজে যোগ দেয়ায়, নতুন করে করোনা সংক্রমণে ঝুঁকির প্রসঙ্গ আনে দেশটির গণমাধ্যম। এরপর বাংলাদেশ থেকে প্রবাসী ফেরার উপর বাড়তি নজর দেয় ইতালী কর্তৃপক্ষ।

সে অবস্থায় দেশটির বিমানবন্দরে আলাদা বুথে পরীক্ষার ব্যবস্থা হয়। ৬ জুলাইয়ের ফ্লাইটে কয়েকজন বাংলাদেশি করোনা উপসর্গ নিয়ে শনাক্ত হলে কড়াকড়ি আরো বাড়ে। সবশেষ ৮ জুলাই কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট রোমে পৌছলে বাংলাদেশি নাগরিকদের সেখানে নামার অনুমতি না দিয়ে, ঐ বিমানে আবারো ঢাকায় ফেরত পাঠানো হয়।

বর্তমানে আশকোনা হজক্যাম্পে কোয়ারেন্টিনে আছেন ওই ১৪৭ জন প্রবাসী। ক্যাম্পের দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানালেন, তাদের বিষয়ে সার্বক্ষণিক তদারিক রয়েছে। ৬ জনকে শারীরিক দুর্বলতা থাকায় কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে ফেরত পাঠানো প্রবাসীরা বলছেন, অনিশ্চয়তার মাঝে রয়েছেন তারা। এছাড়া যাতায়াত খরচের আর্থিক ক্ষতিপুরণের দাবি জানান তারা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে, এ সমস্যা সমাধানে সরকার এগিয়ে আসবে এমন প্রত্যাশা ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসীদের

এ বিষয়ে সিভিল এভিয়েশন অথরিটি বলছে, ইতালির সিদ্ধান্তের বিষয়ে সমন্বয় না করেই বাংলাদেশি প্রবাসীদের ফ্লাইটে নেয়ায়, প্রবাসী কর্মীদের যাতায়াত খরচ অপচয় হয়েছে। আর্থিক ক্ষতির দায়ভার তাদেরকেও নিতে হবে।

আরমান কায়সার, বাংলাটিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close