দেশবাংলা

কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ: আরেক অভিযুক্ত তারেক আটক

সিলেটের এমসি কলেজে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় তারেকুজ্জমান তারেক নামে আরও এক অভিযুক্তকে আটক করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জের দিরাই পৌর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

তারেক সুনামগঞ্জ শহরের সদর উমেদনগরের হাসপাতাল সংলগ্ন নিসর্গ-৫৭ নামের বাড়ির রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি বর্তমানে মেজরটিলা (বাসা-৫, ৩য় তলা, দিপিকা আ/এ বাসায় বসবাস করতেন।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সুনামগঞ্জ ক্যাম্প সিপিসি-৩ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার ফয়সাল জানায়, গণধর্ষণের ঘটনার পর সিলেট থেকে পালিয়ে দিরাইয়ে যান তারেক। পরে মাথার লম্বা চুল ও দাড়ি চেঁছে ফেলেন, যাতে করে তাকে কেউ চিনতে না পারেন।

মঙ্গলবার তাকে আটক করে র‌্যাব।তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে বলেও তিনি জানান। এ নিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত আসামিসহ আটজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে, ধর্ষণের ঘটনায় ছয় আসামিকে পাঁচদিন করে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার আসামি মাহবুবুর রহমান রণি, রাজন ও তার সহযোগী আইনুলের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। এর আগে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) মামলার আরও তিন আসামির পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

তারা হলেন, প্রধান আসামি সাইফুর রহমান, চার নম্বর আসামি অর্জুন লস্কর ও পাঁচ নম্বর আসামি রবিউল ইসলাম। ওইদিন তাদের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রট দ্বিতীয় আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করলে শুনাশি শেষে বিচারক সাইফুর রহমান পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button