দেশবাংলা

চুয়াডাঙ্গায় স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার হাউলি ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামে স্বামী-স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্রাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রবিবার সন্ধ্যার পর কোন এক সময় এ হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটার পর রাত পৌনে ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেছে।

তবে কখন কিভাবে কি কারণে এ হত্যাকান্ডটি ঘটেছে তা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারেনি। নিহতরা হলেন, একই গ্রামের মরহুম বিবাদ আলীর ছেলে পিয়ার আলী মোল্লা (৫৫) ও তার স্ত্রী রোজিনা খাতুন (৪৫)।

হাউলি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য শাহা জামাল জানান, রবিবার নিহত পিয়ার আলী তার মেয়েকে শশুর বাড়ী থেকে আনতে যাওয়ার কথা ছিলো। দুপুর গড়িয়ে গেলেও কেউ মেয়েকে আনতে না গেলে সে বাড়ীতে একাধিকবার মোবাইলফোন কল দিলে তা রিসিভ হয়নি।

বার বার ফোন দিয়ে রিসিভ না হওয়ায় সন্ধ্যায় মেয়ে নিজেই তার শশুর বাড়ী থেকে এসে ঘরের বন্ধ দরজা খুলে ঘরে ঢুকে দেখতে পায় তার মা ও বাবার ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো মরদেহ ঘরের মেঝেতে পড়ে আছে।

তখন তার চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে পুলিশে খবর দিলে, থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। তবে কখন কিভাবে কি কারনে এ হত্যাকান্ডটি ঘটিয়েছে কেউ বলতে পারছে না।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, ধারণা করা হচ্ছে গতরাতে দুর্বৃত্তরা স্বামী ইয়ার আলী ও স্ত্রী রজিনা খাতুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। হত্যার পর তাদের মরদেহ ঘরেই আবদ্ধ করে রাখা হয়।

দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই বাকি বিল্লা ঘটনাস্থল থেকে জানান, তদন্ত শেষে জানা যাবে কেনো হত্যাকান্ডটি ঘটেছে।

মামুন মোল্লা, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button