দেশবাংলা

শ্রীপুরে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন হুজিবি’র দুই সদস্য গ্রেফতার

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের বারতোপা গ্রাম থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজিবি)’র সক্রিয় দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। এসময় তাদের দেহ তল্লাশী করে ১০টি উগ্রবাদী বই এবং ২৩পাতা লিফলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার (১৮ অক্টোবর) ভোর পৌনে চারটার দিকে র‌্যাব-১ এর একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেপ্তার করে বলে সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে র‌্যাব-১ গাজীপুরের পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার আব্দুল্লাহ্ আল মামুন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, ময়মনসিংহ জেলার কোতয়ালী থানার মীরকান্দা পাড়া গ্রামের মো: সাইদুল ইসলামের ছেলে মো: সারোয়ার হোসেন সবুজ (২০), সে শ্রীপুরের মাওনা এলাকার বেজঝুড়ি গ্রামের বেজঝুড়ি মহিলা মোড় মসজিদের ইমাম ছিলেন, অপরজন ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট থানার করুয়াপাড়া গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে মো: এহসানুল হক (২৪),

সে শ্রীপুরের মাওনা ইউনিয়নের বড়বাইদ আব্দুল হামিদ মাষ্টার জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসেবে দায়িত্বপালন করতেন। তারা বারতোপা গ্রামে মসজিদে ইমাম ও খতিবের পেশার পাশাপাশি নির্জন গহীন বনে প্রশিক্ষণ ও নতুন সদস্য সংগ্রহের কাজ করতো।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, রোববার ভোরে র‌্যাব-১’র একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন যে, গাজীপুরের শ্রীপুর থানাধীন বারতোপা বাজারে কতিপয় সদস্য একত্রিত হয়ে নাশকতা ঘটানোর উদ্দেশ্যে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজিবি)’র সক্রিয় সদস্য একত্রিত হয়েছে।

সংবাদ পাওয়ার পরপরই র‌্যাবের একটি দল ওইস্থানে অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজিবি)’র সক্রিয় দুই সদস্য মো: সারোয়ার হোসেন সবুজ ও মো: এহসানুল হককে গ্রেপ্তার করে। এসময় তাদের দেহ তল্লাশী করে উগ্রবাদী দশটি বই এবং তেইশটি পাতা উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজিবি)’র সক্রিয় সদস্য হিসেবে দীর্ঘদিন যাবৎ কাজ করে আসছে বলে জানান। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বারতোপা গ্রামে মসজিদে ইমাম ও খতিবের পেশার পাশাপশি নির্জন গহীন বনে প্রশিক্ষণ ও নতুন সদস্য সংগ্রহে লিপ্ত ছিল।

নতুন সদস্যের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সমাপ্ত হওয়ার পরে তারা গোপনে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে কাশ্মীর ও আফগানিস্তানে যাওয়ার পরিকল্পনা করাসহ দেশেরে অভ্যন্তরে নাশকতার পরিকল্পনা করেছিল। এছাড়াও তারা আফগান তালেবানদের সমর্থক হিসেবে ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে আসছিল।

তারা গাজীপুরে শ্রীপুরে বারতোপা নির্জন গহীন বনে তালেবানী প্রশিক্ষণ প্রদান করে আফগানিস্থান ও কাশ্মীরে ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জিহাদের জন্য সহযোগীদের প্রেরণের পরিকল্পনা গ্রহনসহ পরস্পর যোগসাজশে একত্রিত হয়ে উগ্রবাদে বিশ^াসী সহযোগীদের সহায়তায় ধর্মীয়ভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা ব্যক্তি বর্গকে হত্যা এবং প্রজাতন্ত্রের সম্পত্তির ক্ষয়ক্ষতি সাধনের জন্য আসামীরা উক্ত স্থানে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক সভা করার উদ্দেশ্যে উক্ত স্থানে অবস্থান করছিল।

ধৃত আসামীদ্বয় তাহাদের সংগঠনের উগ্রবাদী কার্যক্রমে সাধারণ মানুষকে উদ্বুদ্ধ করবার জন্য উগ্রবাদী বই ও লিফলেট বিতরণ, তহবিল গঠন, দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্ট করাসহ দেশের নিরাপত্তা, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব বিনষ্ট, নিষিদ্ধ সংগঠনকে সমর্থন, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ধ্বংস ও গুপ্তহত্যার মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল বলে জানিয়েছে র‌্যাব-১।

সুমন শেখ, শ্রীপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button