দেশবাংলা

ফেসবুক কমেন্টকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ নেতাকে মারধর

ফেসবুকের স্ট্যাটাসে একটি কমেন্টকে কেন্দ্র করে গাজীপুরের কালীগঞ্জে সাইদুর রহমান ভূইয়া নামের এক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতাকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। রোববার (২৫ অক্টোবর) সকালে স্বামীর আহতের ঘটনায় বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন স্ত্রী সামসুন্নাহার।

অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচচার্জ একেএম মিজানুল হক বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে অনুসন্ধান ও তদন্ত চলছে। দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আহত সাইদুর রহমান ভূইয়া কালীগঞ্জ পৌর এলাকার বাঘারপাড়া গ্রামের মৃত কুদরত আলী ভূইয়ার ছেলে এবং পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

স্থানীয় ও বাদীর অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ওই গ্রামের প্রতিবেশী শরীফুল আলম ও তার ছেলে মেজবাহ উদ্দিন মাসুম, একই গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানার সাথে বাড়ীর পাশের একটি রাস্তা নিয়ে বিবাদ চলছিল। অতি সম্প্রতি স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সহয়োগীতায় দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকা বিষয়টি নিস্পত্তি হয়।

সেই ঘটনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে ঘটনার নিস্পত্তি করা এক নেতা গত ২৩ অক্টোবর ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। পরে সেই স্ট্যাটাসে প্রতিবেশী মেজবাহ উদ্দিন মাসুম একটি বাজে মন্তব্য করেন। সেই কমেন্টে রিপ্লাই কমেন্ট দেন আওয়ামী লীগ নেতা সাইদুর রহমান ভূইয়া।

পরে সেই ঘটনার সূত্র ধরে শনিবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাঘারপাড়া এলাকার একটি হোটেলে নাস্তা খাওয়া অবস্থায় শরীফুল, মাসুম ও সোহেলসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জন মিলে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সাইদুর রহমানের উপর হামলা চালায় এবং তাকে এলোপাতারি মারধর করে।

এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা সাইদুর রহমান ভূইয়ার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোক জন এগিয়ে আসলে তার কাছে থাকা ১ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত রক্তাক্ত অবস্থায় ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

বর্তমানে সেখানেই তিনি ভর্তি আছেন এবং চিকিসা চলছে। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা সাইদুর রহমান ভূইয়ার স্ত্রী সামসুন্নাহার বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

রফিক সরকার, কালীগঞ্জ প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button