দেশবাংলা

কাঞ্চন-রূপসী সড়ক পুনঃনির্মাণ হলে পাল্টে যাবে রূপগঞ্জের দৃশ্যপট

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে দীর্ঘদিনের প্রত্যাশীত কাঞ্চন-রূপসী সড়কের পুনঃনির্মাণ কাজ চলছে। নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই সড়কটির পুনঃনির্মাণ শেষ করে জনদুর্ভোগ লাগব করতে দাবি জানিয়েছে স্থানীয়রা। অত্যন্ত টেকসই ও মজবুত পদ্ধতিতে ৪ লেন বিশিষ্ট কাঞ্চন-রূপসী সড়কের পুনঃনির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে পাল্টে যাবে রূপগঞ্জের দৃশ্যপট বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ, স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স, ভুঁমি অফিস সহ নানা গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সহজে যাতায়াত করতে কাঞ্চন-রূপসী সড়কটি খুবই গুুত্বপুর্ণ। সময়ের সাথে সড়কটির ২ পাশে গড়ে উঠেছে অসংখ্য ছোট বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠান।

ফলে শিল্পের কাঁচামাল আনা-নেয়ার কাজেও এ সড়কটির ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। এছাড়া এ পথেই প্রতিদিন প্রায় অর্ধলক্ষ মানুষজন হাট-বাজার, স্কুল-কলেজে যাতায়াত করে। জনবহুল ও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটির বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় শুকনো মৌসমে ধূলাবালি আর বর্ষা মৌসুমে কাঁদামাটি জমে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে।

স্থানীয়া জানায়, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে সড়কটি ভেঙ্গে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। শুকনো মৌসুমে ধুলাবালি আর বর্ষাকালে বৃষ্টির পানি জমে খানাখন্দ গুলো বদ্ধ জলাশ্বয়ে রূপ নেয়। শত কষ্ট করেও স্থানীয়দেরকে এ সড়কটিই ব্যবহার করতে হয়।

ফলে তাদের দুর্ভোগের যোন শেষ নেই। তাই এ সড়কটি সংস্কারের দাবিতে একাধীকবার মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করেন তারা। পরে তাদের দাবির প্রেক্ষিতে ও জনদুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে দীর্ঘদিন অপেক্ষার সড়কটি পুনঃনির্মাণের বাজেট ঘোষনা করা হয়। তার মাঝে টেন্ডার জটিলতায় কেটে যায় প্রায় ১ বছর।

সবশেষে ৭ ইঞ্চি লেয়ার দিয়ে ৪ লেন করে সড়কটি পুণঃনির্মাণের অনুমোদন দেয় একনেক। চলতি মাসে প্রকল্পটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তীর গাজী। বাংলাদেশ সরকার ও এশিয়ান ডেভেলপম্যান্ট ব্যাংকের যৌথ অর্থায়নে ১৪ কিলোমিটার দৈর্ঘের কাঞ্চন-রূপসী সড়কটি পুনঃনির্মাণ ব্যয় নির্ধারীত হয় ১৪৩ কোটি টাকা।

আগামী ১৮ মাসের মধ্যে সড়কটি পুনঃনির্মাণের কাজ শেষ করার নির্দেশনা রয়েছে। প্রকল্পটির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এনডিই। বর্তমানে সড়কটির রূপসী, মুড়াপাড়া ও কাঞ্চন এ ৩টি পয়েন্টে কাজ চলছে। সড়কটির নির্মাণ শেষ হলে এ সড়ক দিয়ে মুড়াপাড়া হয়ে গাজী সেতু দিয়ে ডেমড়া, ষ্টাফকোয়ার্টার সহ ঢাকার সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরো সহজতর হবে।

ফলে রূপগঞ্জবাসী দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ থেকে মুক্তিপাবে। পাল্টে যাবে রূপগঞ্জের দৃশ্যপট। যোগাযোগ ব্যবস্থা হবে আরো সুপ্রসন্ন। তাই জনগণের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশীত এ সড়কটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই পুনঃনির্মাণ শেষ করে জনদুর্ভোগ থেকে স্থানীয়দের মুক্তি দেয়া যেন সময়েরই দাবি।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সাংসদ, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, ১৪ কিলোমিটার দৈর্ঘের কাঞ্চন-রূপসী সড়কটির পুনঃনির্মাণ ব্যয় ১৪৩ কোটি টাকা। যা আগামী দেড় বছরের মধ্যেই নির্মাণ কাজ শেষ করার নির্দেশনা রয়েছে। সড়কটি নির্মাণ শেষ হলে রূপগঞ্জ সহ ঢাকার আশেপাশে যাতায়াত আরো সহজ হয়ে উঠবে।

ফলে ঢাকার বাহিরে এতো বড় একটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়ায় ও রূপগঞ্জের অবকাঠামোগত নানা উন্নয়নের কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান মন্ত্রী।

সোহেল কিরণ, রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button