দেশবাংলা

রূপগঞ্জে হামলার অভিযোগে প্যানেল মেয়র গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের উপর হামলার ঘটনায় পৌর কাউন্সিলর পনির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে কাঞ্চন পৌরসভার বিরাব থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগেও মামলা হয়েছে থানায়।

অভিযুক্ত পনির হোসেন রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর। তিনি এই পৌরসভার প্যানেল মেয়র। বুধবার (৪ নভেম্বর) তার বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয়দের বরাতে ভোলাব পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক মাহাবুুর রহমান জানান, দীর্ঘদিন ধরে কাঞ্চন পৌরসভার তারাই এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কাঞ্চন পৌরসভার প্যানেল মেয়র পনির হোসেন ও তার ভাই শহিদুল ইসলামের সাথে একই এলাকার আয়নাল হক ও সজিব মিয়ার বিরোধ চলছে।

এরই জেরে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে আয়নাল হক, সজিব মিয়া, রবিউল ইসলাম, দুলাল মিয়াসহ আরও কয়েকজনের উপর বিরাব বাজারে হামলা চালায় প্যানেল মেয়র পনির হোসেন, তার ভাই শহিদুল ইসলাম ও তাদের লোকজন।

এই হামলায় আয়নাল হক, সজিব মিয়া, রবিউল ইসলাম, দুলাল মিয়াসহ ৬ ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে তাদের উপরও চড়াও হয় প্যানেল মেয়র পনির হোসেন ও তার লোকজন। পরে পনির হোসেনকে আটক করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপর হামলা চালায় পনির হোসেনের অনুসারী লোকজন। আহত হন পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান।

মাহবুবুর রহমান বলেন, হামলার শিকার ব্যক্তিরা থানায় এসে প্যানেল মেয়রের নাম উল্লেখসহ আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে ঘটনাস্থলে পৌছাই। এ সময় প্যানেল মেয়র ও তার লোকজন পুলিশের সাথে অসদাচরণ করে। তার ব্যক্তিগত গাড়ির একটি চাকাও তুলে দেয় পরিদর্শক মাহবুবুরের পায়ের উপর। এতে আহত হন তিনি। পরে প্যানেল মেয়র পনির হোসেনকে আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনায় হামলার শিকার রূপগঞ্জ থানায় তারাইল এলাকার সজিব মিয়া বাদী হয়ে পনির হোসেনসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। একই আসামিদের বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে পৃথক আরও একটি মামলা করেন।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান বলেন, প্যানেল মেয়র পনির হোসেন ও তার লোকজন তাদের প্রতিপক্ষ কয়েকজনকে ব্যাপক মারধর করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ গেলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করে তারা। থানায় পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে।

পনির হোসেনকে গ্রেফতারের পর সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

সোহেল কিরণ, রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button