দেশবাংলা

কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ: ডিএনএ রিপোর্টে সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনার ডিএনএ রিপোর্ট তদন্ত কর্মকর্তার কাছে পৌঁছেছে। আসামিদের ডিএনএর সঙ্গে ঘটনাস্থলের ডিএনএ নমুনার মিল পাওয়া গেছে।

রোববার আদালতের মাধ্যমে ডিএনএ রিপোর্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগরের শাহ প্রান (র.) থানায় পৌঁছায়। সোমবার সকালে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ডিএনএ রিপোর্ট তদন্ত কর্মকর্তার হাতে এসে পৌঁছেছে। আসামিদের ডিএনএর সঙ্গে ঘটনাস্থলের ডিএনএ নমুনার মিল পাওয়া গেছে। এখন খুব শিগগিরই মামলার চার্জশিট আদালতে দাখিল করা হবে।

এর আগে, গত ১ অক্টোবর ও ৩ অক্টোবর ২ দিনে এ মামলায় গ্রেফতার ৮ জনের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নমুনা সংগ্রহের পর পাঠানো হয় ঢাকার ল্যাবে। সেখান থেকে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল প্রথমে আদালতে এসে পৌঁছায়। পরবর্তীতে এ ফলাফল তদন্ত কর্মকর্তার হাতে আসে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) রাত সাড়ে ৭ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে ওই গৃহবধূকে গণধর্ষণ করে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এ ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে এসএমপির শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার প্রেক্ষিতে র‍্যাব ও জেলা পুলিশের অভিযানে আটক ৮ জন কারাগারে আছেন। গ্রেফতার সবাইকে ৫ দিন করে রিমান্ডে নেয় পুলিশ। রিমান্ড শেষে তাদেরকে আদালতে হাজির করা হলে তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button