অন্যান্যবাংলাদেশ

৮ ডিসেম্বর: ক্রমশ কোণঠাসা হতে থাকে পাকবাহিনী

৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ সাল। বাংলার মুক্তি সংগ্রামের এই দিনে হানাদারমুক্ত হয় শেরপুর, হবিগঞ্জ, গোপালগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গাসহ বেশ কয়েকটি জেলা। স্বাধীন এসব ভূখণ্ডে উড়তে থাকে বিজয় নিশান। বাংলা মায়ের দামাল ছেলেরা একের পর এক সফল অপারেশনে পাকবাহিনীকে পরাজিত করে এগিয়ে যায় চূড়ান্ত বিজয়ের লক্ষ্যে।

বাংলা মায়ের সূর্য সন্তানদের প্রবল প্রতিরোধের মুখে ডিসেম্বরের প্রথম দিন থেকে ক্রমশঃ কোনঠাসা হতে থাকে পাকবাহিনী। একে একে মুক্ত হতে থাকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল। এ দিনে সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকায় পাকিদের সাথে মুক্তিবাহিনীর বেশ কয়েকটি সম্মুখযুদ্ধে পিছু হটে শত্রু পক্ষ।

এ যুদ্ধে দেবহাটা উপজেলার শ্রিপুর ও ভোমরা সীমান্তে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে নিহত হয় পাকবাহিনীর সাড়ে তিনশো সদস্য। যুদ্ধের শুরু থেকেই নোয়াখালীর পিটিআই স্কুলটিতে শক্তিশালী ঘাঁটি গড়ে তোলে পাকবাহিনী। ৬ ডিসেম্বর ভোর থেকে ঘাঁটিটি ঘেরাও করে রাখে মুক্তিবাহিনী।

দিনভর সম্মুখ যুদ্ধের পর রাতের আঁধারে পালিতে যেতে বাধ্য হয় পাক সেনারা। ৮ ডিসেম্বর সকালে সেখান থেকে কয়েকজন রাজাকারকে গ্রেফতার করে মুক্তিযোদ্ধারা। স্বাধীন হয় নোয়াখালী। শত্রুদের পরাজিত হওয়ার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সারা দেশে। ফলে আরও প্রবলভাবে শত্রু শিবিরে হামলা চালায় দেশ মাতৃকার সূর্য সন্তানেরা।

এই দিনেই গাইবান্ধা, শেরপুর, হবিগঞ্জ, গোপালগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গায় বিজয়ের পতাকা ওড়ায়, বাংলার অকুতোভয় বীর সেনারা।

বুলবুল আহমেদ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button