অন্যান্যবাংলাদেশ

১৪ ডিসেম্বর: শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

১৪ ডিসেম্বর যারা বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিল তাদের দোসররা এখনো সক্রিয় বলে জানিয়েছেন, বিশিষ্টজনেরা।স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরেও তারা দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা ব্যহত করার ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে বলেও মনে করেন তারা।তাদের মুল উৎপাটনের এখনি সঠিক সময় বলেও মত দেন এই বিশিষ্টজনেরা।

১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর। মুক্তিবাহিনীর তুমুল প্রতিরোধের মুখে পিছু হটতে থাকে পাক সেনারা। চারিদিক থেকে আসতে থাকে বিজয়ের সু-বাতাস। ঠিক সেই মুহূর্তে পরাজয় নিশ্চিত জেনে, রাজাকার আলশামস আল -বদরদের সহায়তায় দেশকে মেধাহীন করার ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করে পাকি শাসক গোষ্ঠী। শুরু হয় নীল নকশা বাস্তবায়নে সাঁড়াশি অভিযান।

রাতের আধারে দেশ বরেণ্য খ্যাতনামা লেখক, চিকিৎসক, শিক্ষাবিদ আইনজীবী, সাংবাদিকসহ হাজারো সূয সন্তানকে নির্মমভাবে হত্যা করে লাশ ফেলে দেয়া হয়,বদ্ধভুমিতে। সেই দিনের নির্মম হত্যাকাণ্ড জাতির জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি বলে মনে করেন ইতিহাসবিদ সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।

সেদিন যারা দেশ মাতৃকার সূর্য সন্তানদের হত্যা করেছিল, সেই অপশক্তি এখনো সক্রিয় বলে জানান আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সাহাবুদ্দিন চপ্পু। দেশের উন্নয়ন ব্যহতকারী স্বাধীনতাবিরোধী এই অপশক্তিকে উপড়ে ফেলার এখনই সঠিক সময় বলেও জানান তিনি।

বুলবুল আহমেদ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button