দেশবাংলা

চুয়াডাঙ্গায় সোনালী ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ৪

চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের নির্ঘুম প্রচেষ্টায় জীবননগর উথলী সোনালী ব্যাংক শাখায় ডাকাতির ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৫ লাখ ৩ হাজার নগদ টাকা, ১টি খেলনা রিভলবার, ১টি খেলনা পিস্তলের ভাঙ্গা অংশ, ২টি চাপাতি, ১টি ল্যাপটপ, ২টি হেলম্যাট, ১ জোড়া হ্যান্ডগ্লাভস ও ১টি সাদা রঙের পিপি।

গ্রেফতার আসামীরা হলেন, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার দেহাটী গ্রামের ফকিরপাড়ার রফিক উদ্দিনের ছেলে সাফাতুজ্জামান রাসেল (৩০), একই গ্রামের জাহাঙ্গীর শাহ’র ছেলে রকি (২৩), ওই গ্রামের বাজারপাড়ার মরহুম আক্তারুজ্জামান বাচ্চুর ছেলে হৃদয় (২২) ও একই গ্রামের ফকিরপাড়ার মফিজুল শাহ’র ছেলে মাহফুজ আহম্মেদ আকাশ (১৯)।

চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩টায় এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে জনান, আসামী রাসেল তার সহযোগী হৃদয়কে নিয়ে ব্যাংক ডাকাতির পরিকল্পনা করে। রাসেল অনেক টাকা ঋণগ্রস্থ ছিলো ওই ঋণের টাকা পরিশোধ করে বাকী টাকা দিয়ে স্বাচ্ছন্দে চলার জন্যই সে এই ডাকাতির পথ বেছে নেয়। সেই জন্য নিজের ভাইয়ের ছেলে রকিকে সঙ্গে নিয়ে ও হ্যান্ডগ্লাভস পরে ব্যাংকের টাকা লুট করতে উদ্যোগী হয়।

ব্যাংকটিতে সিসি টিভি ক্যামেরা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার না থাকায় ওই ব্যাংকটিতে তারা ডাকাতির করার পরিকল্পনা বেছে নেয়। এতে তারা হৃদয় ও আকাশকে সংপৃক্ত করে।

চুয়াডাঙ্গা সহকারি পুলিশ সুপার আবু রাসেল, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান, এসআই সুলতান ও রাজিবুল হক সমন্বিতভাবে চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ পার্শ্ববর্তী যশোর জেলার চৌগাছা থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে তারা জড়িত প্রকৃত আসামীদের গ্রেফতার করেন।

উল্লেখ্য, চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার সোনালী ব্যাংক উথলী শাখা থেকে ১৫ নভেম্বর দুপুরের খেলানা পিস্তল দেখিয়ে তিন যুবক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জিম্মি করে ৮ লাখ ৮২ হাজার ৯০০ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর সোনালী ব্যাংক উথলী শাখার ব্যবস্থাপক আবু বক্কর সিদ্দিক বাদী হয়ে জীবননগর থানায় একটি মামলা করেন।

মামুন মোল্লা, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button