বাংলাদেশঅপরাধ

লাগামছাড়া হয়ে উঠছে ‘কিশোর গ্যাং’

দেশের শিশুদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলায় এখন বড় বাধা কিশোর-গ্যাং সংস্কৃতি। উঠতি বয়সের কিশোরদের এ গ্যাং, সঙ্গবদ্ধভাবে জড়িয়ে পড়ছে মাদক সেবন, খুন-ধর্ষণসহ নানা ভয়ঙ্কর অপরাধে। এলাকাভিত্তিক আধিপত্য বিস্তার নিয়েও এদের মধ্যে ঘটে সশস্ত্র সহিংসতা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিশোরদের এই বিপথগামী হওয়ার জন্য প্রযুক্তির অপব্যবহার ও পারিবারিক নজরদারির অভাবই দায়ী। পাশাপাশি, প্রচলিত সমাজ ব্যবস্থাও এদের অপরাধে উস্কে দিচ্ছে বলে মনে করেন তারা। আর, এটি নির্মূলে সম্মিলিতভাবে কাজ করার তাগিদ দিয়েছেন অপরাধ বিশেষজ্ঞরা।

বর্তমান সময়ের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে কিশোরদের গ্যাং কালচার ও কিশোর অপরাধ। সমাজ পরিবর্তনের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সামাজিক অবক্ষয়ও। সমাজের নানাবিধ অসঙ্গতি ও অস্বাভাবিকতায় খেই হারিয়ে, নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে উঠতি বয়সের শিশুরা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, আর্থসামাজিক অবস্থার পরিবর্তন ও আকাশ সংস্কৃতি কিশোরদের অপরাধপ্রবণতা বাড়ার অন্যতম কারণ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ও অপরাধ বিশ্লেষক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন বলেন, পর্যাপ্ত নজরদারির অভাবে কিশোররা অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

একই বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আকিব উল হক মনে করেন, কিশোরদের অপরাধপ্রবণতা বাড়ার আরেকটি বড় কারণ, সমাজের অন্য সব অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হওয়া। পাশাপাশি, শিশু-কিশোরদের খেলাধুলা এবং বিভিন্ন ধরণের বিনোদনের সুযোগ কমে যাওয়াও অপরাধ-প্রবণতার অন্যতম কারণ বলে মনে করেন তিনি।

পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, অপরাধপ্রবণতা থেকে বাঁচাতে, শিশু-কিশোরদেরকে প্রযুক্তির ইতিবাচক ব্যবহার ও এর সম্ভাবনা সম্পর্কে সচেতন করতে হবে। রাষ্ট্র অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গুরুত্ব দিলে প্রচলিত আইনী কাঠামোর মধ্যেই কিশোর অপরাধ নির্মূল করা সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি।

আসাদ রিয়েল, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button