দেশবাংলা

মেহেরপুরে ১০ ইটভাটায় ৬০ লাখ টাকা জরিমানা

মেহেরপুরের গাংনীতে পৃথক ১০ টি ইট ভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তর অভিযান চালিয়ে ৬০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। মঙ্গলবার সকাল থেকে এ অভিযান শুরু করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্র্যাম্যমান আদালতের একটি বিশেষ টিম।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সুত্রে জানা গেছে, আইন ও বিধি উপেক্ষা করে অধিকাংশ ইট ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে কাঠ, নেই পরিবেশ অধিদপ্ততরের ছাড়পত্র। তাছাড়া জনবহুল এলাকায় ইটভাটা প্রস্তুত ও আবাদী জমিতে ইটভাটা স্থাপনের কারণে অভিযান চালানো হয়।

এ অভিযানে পুরাতন মটমুড়া নামক স্থানে তমা ব্রিক্স এর মালিক তোফাজ্জেল হোসেনকে ৭ লাখ টাকা, এমভি জোয়ার্দ্দার ব্রিক্সের মালিক আরাফুল ইসলামকে ৬ লাখ টাকা, শুকুরকান্দির সমতা ব্রিক্সের মালিক মনিরুজ্জমান ৮ লাখ টাকা, রুপসা ব্রিক্সের মালিক আনোয়ার পারভেজকে ৭ লাখ, থ্রী স্টার ব্রিক্সের মালিক জালাল উদ্দিনকে ৪ লাখ, বস ব্রিক্সের মালিক মহম্মদপুরের সবুজকে ৪ লাখ।

বেস্ট ব্রিক্স এর মালিক রফিকুল ইসলামকে ৫ লাখ, এবং একতা ব্রিক্স এর মালিক মটমুড়া গ্রামের খবিরুদ্দীনকে ৬ লাখ, এবং ভিশন ব্রিক্সের মালিক সেলিম উদ্দিনকে ৭ লাখ টাকা, জনতা-আবুল হাশেমকে-৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। আদালত পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবু হাসান।

এসময় পরিবেশ অধিদপ্তরের কুষ্টিয়া জোনের উপ-পরিচালক আতাউর রহমানসহ র‌্যাব-৬এর ডিএডি শফিকুল ইসলাম,ফায়ার সাভিসের স্টেশন মাস্টার ইসাহাক আলীসহ পুলিশেলএকটি টিম উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান জানান, অধিকাংশ ইট ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে কাঠ, নেই পরিবেশ অধিদপ্ততরের ছাড়পত্র না থাকায় এসকল ইট ভাটায় জরিমানা আদায় করা হয়েছে। ইট প্রস্তুত ইটভাটা স্থাপন আইন ২০১৩ সংশোধিত ২০১৯ অনুযায়ি এ জরিমানা করা হয়। ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়া হয় বেশ কয়েকটি ভাটা।

তবে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আতাউর রহমান।

আকতারুজ্জামান, মেহেরপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button