দেশবাংলা

১০ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

ঘনকুয়াশায় ১০ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির সহকারী মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম জানান, শনিবার মাঝরাতে কুয়াশার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায়, পদ্মা নদীতে দিক নির্ণয়ে সমস্যা হওয়ায় দুর্ঘটনা এড়াতে মধ্যরাত থেকে যাত্রী ও পন্যবাহী যানবাহনসহ মাঝ নদীতে নোঙ্গর করতে বাধ্য হয় ৫টি ফেরী। কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১১ টায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়। দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় শীতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।

এদিকে, ঘনকুয়াশার কারনে চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌ-রুটে ৬ঘন্টা বন্ধ থাকার পর ফেরী চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। চাঁদপুর-হরিনা ফেরীঘাট ম্যানেজার ফয়সাল আহমেদ জানায়, রাত বাড়ার সাথে সাথে কুয়াশা বৃদ্ধি পাওয়ায় মেঘনা নদীতে ফেরী চলাচল বন্ধ রাখা হয়। ফলে হরিনা ঘাটে আটকা পড়ে ৪টি ফেরি। এতে দুর্ভোগে পড়ে হাজারো যাত্রী। পরে সকাল ৯ টায় কয়াশা কিছুটা কমে গেলে ফেরী চলাচল শুরু হয়।

অন্যদিকে, ঘন কুয়াশা আর কনকনে ঠান্ডায় পাবনার ঈশ্বরদী ও এর আশপাশের উপজেলাগুলোর মানুষের জীবনযাত্রা বির্পযস্ত হয়ে পড়েছে। গত তিনদিন ঈশ্বরদী ও আশপাশের উপজেলাগুলোতে সূর্যের দেখা মেলেনি। ঘনকুয়াশার কারণে বিভিন্ন যানবাহনকে হেড লাইট জালিয়ে চলাচল করতে দেখা যায়।

রোববার সকালে ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফিস সর্বনিম্ন ১৩ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে। এছাড়া গত তিনদিনে গড় তাপমাত্রা ছিলো ১১ দশমিক ৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button