বাংলাদেশঅন্যান্য

পদ্মশ্রী খেতাব: প্রতিক্রিয়ায় যা বললেন তারা

বাংলাদেশের সংস্কৃতি আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ছায়ানটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সনজীদা খাতুন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী সাজ্জাদ আলী জহির বীরপ্রতীক, পাচ্ছেন ভারত সরকারের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘পদ্মশ্রী’ খেতাব। প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে ভারত সরকার সোমবার চলতি বছরের পদ্ম বিভূষণ, পদ্ম ভূষণ ও পদ্মশ্রী খেতাবের জন্য মনোনীতদের নাম ঘোষণা করে।

এই সম্মাননা প্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় এই দুই বিশিষ্ট ব্যক্তি বলেন, সংস্কৃতি ও ইতিহাসের চর্চা ও তার প্রসারে কাজ করা নিজেদের দায়িত্ব। আর সেই কাজের জন্য এই সম্মাননা গৌরবের।

প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে, প্রতিবছর পদ্ম সম্মান প্রাপকের তালিকা প্রকাশ করে ভারত সরকার। সোমবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশ করেছে ২০২১–এর পদ্ম সম্মান প্রাপকের তালিকা। এ বছর ভারতের চতুর্থ বেসামরিক সর্বোচ্চ পদক পদ্মশ্রী সম্মাননায় ভূষিত বাংলাদেশের দুই গুণী ব্যক্তিত্ব।

তারা হলেন, দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব সন্জীদা খাতুন ও অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্ণেল কাজী সাজ্জাদ আলী জহির, বীরপ্রতীক।

রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী, লেখক গবেষক, সংগঠক ও শিক্ষক সনজীদা খাতুন এ সম্মাননা পাচ্ছেন শিল্পকলায়। পদ্মশ্রী পদক প্রাপ্তির খবরে এক বিবৃতিতে ছায়ানট বলেছে, এই অর্জনে ছায়ানট গৌরব বোধ করছে। এটি তার আজীবন শুদ্ধ সংস্কৃতি-সাধনার স্বীকৃতি। এই অর্জন সমগ্র বাঙালির এবং বাংলাদেশের মানুষের।

অন্যদিকে, সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের সাবেক উপদেষ্টা অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্ণেল কাজী সাজ্জাদ আলী জহির পদক পাচ্ছেন ‘পাবলিক অ্যাফেয়ার্স’ শাখায়। ভারতের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় এই সম্মান প্রাপ্তিতে বাংলা টিভির কাছে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করেন কাজী সাজ্জাদ আলী জহির।

তিনি মনে করেন, মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ও নিজের জ্ঞান তরুণ প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারাই তার জীবনের বড় স্বার্থকতা। এই বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বের মতে, বাঙালির গৌরবের ইতিহাসকে টিকিয়ে রাখার ভার তরুণ প্রজন্মের; তাদেরকে সেই দায়িত্ব নিতে হবে।

আসাদ রিয়েল, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button