দেশবাংলা

কালীগঞ্জ হাসপাতালে পড়ে আছে অজ্ঞাত মরদেহ

বয়স আনুমানিক ৮৫ কিংবা ৮৬ হবে। মুখভর্তি সাদা দাড়ি। চেহারা অনেকটাই রোগ্ন-শোগ্ন। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে। গায়ে সাদা হাফ হাতা গেঞ্জি ও একই কালারের লুঙ্গি। এ রকম একটি মরদেহ গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পড়ে আছে। কিন্তু পরিচয় মিলছে না। তবে নিহত অজ্ঞাত ওই পুরুষ একজন মুসলিম পুলিশ সেটি শনাক্ত করেছেন।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুল হক। তিনি বলেন, তার সাথে কিছু পুটলা-পাটলি দেখে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি একজন ভিক্ষুক হতে পারেন। তবে পরিচয় সনাক্তের চেষ্টা চলছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে তদন্ত কর্মকর্তা কালীগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) ফরিদ মিয়া জানান, সোমবার (১ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে আড়িখোলা রেলওয়ে স্টেশন প্লাটফর্মে অসুস্থ হয়ে পড়েন অজ্ঞাত ওই বয়ষ্ক লোকটি। পড়ে সোয়া সকাল ৯টার দিকে অজ্ঞাত এক রিকসা চালক তাকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে চলে যান।

হাসপতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে প্রাথমিক সেবা দিয়ে হাসপতালে ভর্তি করার। পরে রাত ৮টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তিনি আরো জানান, নিহতের পরিচয় না পাওয়ায় ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপতালে প্রেরণ করা হয়েছে। সেখান থেকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) বিশেষজ্ঞ দল নিহতের আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা করবেন।

পরিচয় না মিললে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামকে মরদেহ দাফনের দায়িত্ব দেওয়া হবে। আর পরিচয় সনাক্ত হলে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে বলেও জানা পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো. মিনহাজ উদ্দিন মিয়া বলেন, গতকাল সকালে কে বা কারা হাসপাতালে রেখে চলে যায়। পরে তাকে চিকিৎসা দিয়ে কিছুটা সুস্থ করে তোলা হয়। এ সময় মুরুব্বির কিছু কথা-বার্তায় বুঝা যায় তার বাড়ী নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার কোন এলাকায় হবে। তবে তার বার্ধক্য জনিত নানা সমস্যাসহ শ্বাস-কষ্টের সমস্যা ছিল।

রফিক সরকার, গাজীপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button