বিশ্ব বানিজ্যআন্তর্জাতিকবানিজ্য সংবাদ

অবশেষে ছুটলো সুয়েজ খালে আটকানো জাহাজটি

মিশরের সুয়েজ ক্যানেলে আড়াআড়িভাবে আটকে পড়া, কনটেইনারবাহী জাহাজ এমভি এভার গিভেনকে অবশেষে মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, শনিবার ভরা জোয়ারেও এমভি এভার গিভেনকে সরানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে, সোমবার ভোররাতে জাহাজটি সরানোর কাজ তৎপরতা বাড়ায় ইঞ্চকেপ শিপিং সার্ভিসেস। এক টুইটার বার্তায় জাহাটির মালিক জানান, ৪০০ মিটার দীর্ঘ এবং ৫৯ মিটার প্রশস্ত খালের পাশের চরায় আটকে যাওয়া এভার গিভেনকে সফলভাবে ভাসিয়ে তোলা সম্ভব হয়েছে এবং জাহাজটি এখন নিরাপদ।

তবে পরে তিনি বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, আপাতত জাহাজটি ঘুরিয়ে প্রায় সোজা করা সম্ভব হয়েছে।  জাহাজটি খালে আড়াআড়ি আটকে যাওয়া লোহিত সাগরের সঙ্গে ভূমধ্যসাগরকে যুক্ত করা বিশ্বের ব্যস্ততম এই বাণিজ্যপথটি বন্ধ ছিল প্রায় এক সপ্তাহ ধরে। সুয়েজ ক্যানেলে দুই প্রান্তেই, বিভিন্ন গন্তব্যের বানিজ্যিক হাজারো জাহাজের একরকম জট সৃষ্টি হয়।

সোশাল মিডিয়ায় আসা ভিডিওতে দেখা গেছে, জাহাজের পেছনের অংশ খালের পাড়ের একদিকে উঠে এসেছে, তাতে সামনের দিকে খালের একটি অংশ উন্মুক্ত হয়েছে।

এশিয়া ও ইউরোপের মধ্যে সংক্ষিপ্ততম জলপথ হল সুয়েজ খাল। ১৯৩ কিলোমিটার দীর্ঘ এই জলপথে তিনটি প্রাকৃতিক হ্রদ আছে। পরিস্থিতি বিবেচনায় অনেক নৌযান ঘুরপথে আফ্রিকা হয়ে চলাচল করতে বাধ্য হয়। কিন্তু তাতে সময় ও খরচ বেড়ে যায় কয়েক গুণ।

তাইওয়ান থেকে একটি জাহাজ সুয়েজ খাল হয়ে নেদারল্যান্ডসে পৌঁছাতে সময় লাগে ২৫ দিনের মত, সেখানে ঘুরপথে আফ্রিকার কেইপ অব গুড হোপ হয়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে সেই জাহাজের লাগবে ৩৪ দিন।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, তীব্র বাতাসের কারণে এভার গিভেন খালের তীরের কাছে চরে আটকা পড়ে, তাছাড়া ধুলিঝড়ও তখন দৃষ্টিসীমাকে বাধাগ্রস্ত করেছিল।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জেনারেল ওসামা রাবি বলেছেন, আবহাওয়া ‘মূল কারণ ছিল না’। এক্ষেত্রে ‘কারিগরি বা মানুষের ত্রুটি’ ছিল বলেও তার ধারণা। শোয়েই কিসেন-এর প্রেসিডেন্ট ইউকিতো হিগাকি বলেছেন, জাহাজটির ক্ষতি হয়নি। ভেতরে পানিও প্রবেশ করেনি।

বাংলাটিভি/আন্তর্জাতিক

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button