দেশবাংলা

চাঁদপুরে বারিড পাইপের মাধ্যমে সেচের আওতায় ফসলি জমি

পানির অপচয় রোধ ও উৎপাদন খরচ কমাতে চাঁদপুরে বারিড পাইপের মাধ্যমে সেচের আওতায় এলো ৫০হাজার একর ফসলি জমি। ইতোমধ্যে ৩৪ হাজার মিটার বারিড পাইপের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বিএডিসি মাধ্যমে এলপিজি প্রকল্পের আওতায় ড্রেনের বিকল্প হিসেবে মাটির নিচ দিয়ে পাইপের মাধ্যমে সেচ পানি সরবরাহ করা হবে। এতে ধান উৎপাদনে কৃষকের খরচ তুলনামূলক কম হবে। উপকৃত হবে কৃষক।

শস্য উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি পানির অপচয় রোধ ও কৃষকের খরচ কমাতে বিএডিসির চাঁদপুর কুমিল্লা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সেচ প্রকল্পের আওতায় স্থাপন করা হচ্ছে বাড়িড পাইপ। এর ফলে কমেছে কৃষকের উৎপাদন খরচ ও পানির অপচয়,নতুন করে আবাদ হচ্ছে অনাবাদি জমি।

আদি পদ্ধতি হিসেব কৃষকরা জমিতে আল দিয়ে নালা তৈরি করে ডিজেল চালিত মেশিনে সেচের ব্যবস্থা করতো। এতে শতাংশ প্রতি খরচ হতো প্রায় ৫০টাকা। আর বারিড পাইপ স্থাপনে তাদের খরচ হচ্ছে ৩৩ টাকা। এছাড়াও পাওয়া যাবে চাহিদামত পর্যাপ্ত পানি।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বলছে, চাষাবাদ পদ্ধতিকে আধুনিক ও সাশ্রয়ী করতে ভূগর্ভস্থ সেচনালা প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।২০২০-২১ অর্থ বছরে মতলবে ৫ কিউসেক,কচুয়ায় ৫ কিউসেক,হাজীগঞ্জে ২ কিউসেক,শাহরাস্থিতে ১ কিউসেকসহ মোট ২৪ টি নতুন ভূগর্ভস্থ সেচ নালা স্থাপন করা হয়।

ডেস্ক রিপোর্ট/ বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button