দেশবাংলা

সংকটে চাঁদপুরের খাঁচায় মাছ চাষীরা

খাদ্যের দাম বৃদ্ধি,পানি দূষণ,মাছের কাঙ্খিত দাম না পাওয়া এবং করোনা সংকটে পড়েছে, চাঁদপুরের খাঁচায় মাছ চাষ পদ্ধতি। এতে গত একবছরে শতাধিক খাঁচা বন্ধ হয়ে গেছে। মুক্ত জলাশয় কিংবা বদ্ধপুকুরের তুলনায়, খাঁচায় মাছ চাষ সহজ ও লাভজনক হওয়ায় অনেকেই খাঁচায় মাছ চাষে আগ্রহী। তবে বর্তমানে লোকসানের ভারে খাঁচা গুটিয়ে নিয়েছেন অনেকে। এ পদ্ধতির চাষে সুদিন ফেরাতে,স্বল্প সুদে ঋণের দাবি চাষীদের।

বাংলাদেশে সর্বপ্রথম ২০০২ সালে চাঁদপুরের ডাকাতিয়া নদীতে শুরু হয়,খাচায় মাছ চাষ পদ্ধতি। অন্য সব পদ্ধতি অপেক্ষা বেশী সাশ্রয়ী এবং লাভজনক খাচায় মাছ চাষ। ডাকাতিয়া পাড়ের মানুষের এ পদ্ধতিতে মাছ চাষে, অপার সম্ভাবনা ও কর্মসংস্থানের আশা জাগলেও,বর্তমানে লোকসানের ভারে তা নিভে যেতে বসেছে।

খাঁচায় মূলত মনোসেক্স জাতের তেলাপিয়া,পাঙ্গাশ ও সিং মাছ চাষ করা হয়। ২০১৭ সালে খাঁচা কমে যাওয়ায়, মৎস্য অধিদপ্তরের বৃহত্তর কুমিল্লা জেলায়, মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায়, বেশ কিছু খাঁচা তৈরি করে দেয়া হয়।তবে, বর্তমানে খাদ্যের দাম বৃদ্ধি, ডাকাতিয়া নদীর পানি দূষণ এবং মাছের কাঙ্খিত দাম না পাওয়ায়,এ পদ্ধতিতে মাছ চাষ বন্ধ করে দিয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে আলাদাভাবে পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানান,জেলা মৎস্য কর্মকর্তা।চাঁদপুরে বর্তমানে ১৮শ ৯২টি খাঁচা রয়েছে। এ খাচাগুলো ১৬০ জন চাষী পরিচালনা করছেন।

ডেস্ক রিপোর্ট/বাংলা টিভি/এস

 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button