fbpx
বাংলাদেশঅপরাধআইন-বিচারআওয়ামী লীগরাজনীতিসরকার

একাত্তর ও পঁচাত্তরের অপশক্তিরা এখনো তৎপর: শিক্ষামন্ত্রী

জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে দেশকে অস্থিতিশীল করতে একাত্তর ও পঁচাত্তরের ঘাতকরা পাঁয়তারা চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে চাঁদপুর সদর উপজেলা অডিটরিয়ামে ‘সম্প্রীতি সমাবেশে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জননেত্রী শেখ হাসিনার মাধ্যমে আজ বিশ্বের বুকে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে দেশ। তখনই একাত্তর ও পঁচাত্তরের ঘাতকরা এই অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দিতে চায়, সরকারের অগ্রযাত্রাকে ক্ষুণ্ন করতে চায়। একাত্তর ও পঁচাত্তরের অপশক্তিরা এখনো তৎপর। যে তত্ত্বাবধায়ক সরকার মৃত, এখন সেই তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায় তারা।

আমরা সম্প্রীতির বাংলাদেশ চেয়েছি, আমরা অসাম্প্রদায়িক দেশ পেয়েছি। এ জন্যই যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে একটি সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত করেছেন। অপশক্তিরা কোনো না কোনো প্রমাণ রেখে যায়, যার মাধ্যমে আমরা অপশক্তির মানুষগুলোকে চিনতে পারি।

তিনি আরও বলেন, যারা প্রতিদিন কারফিউ দিয়ে দেশ পরিচালনা করেছে, তারা আজ গণতন্ত্রের কথা বলে। অনুপ্রবেশকারীদের ঠেকাতে হবে। তারা দলের মধ্যে ঢুকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে, সেই অপশক্তিকে রুখে দিতে হবে। আজ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। সেসব অপশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের যে প্রতিমা ভাঙচুর হয়েছে, তাদের ঘরবাড়ি পুড়েছে। এ কারণে আমাদের স্বাধীনতাকে আঘাত করা হয়েছে।আমাদের সবাইকে একসঙ্গে সেই অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। পুলিশ তো একা কিছু করতে পারবে না, নিরাপত্তার দায়িত্ব নিতে হবে সবাইকে।

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওসমান গনি পাটওয়ারীসহ অন্যান্যরা।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button