অন্যান্যবাংলাদেশ

‘ন যাইয়ুম, শ্লোগানে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিক্ষোভ; প্রত্যাবাসন অনিশ্চিত

পরিস্থিতি অনুকূল না হওয়ায় আতঙ্কিত ও ক্ষুব্ধ রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে যেতে অস্বীকার করলে বৃহস্পতিবারের প্রত্যাবাসন কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। এতে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া নিয়ে নতুন করে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, প্রথম দফায় প্রত্যাবাসনের জন্য কিছুসংখ্যক রোহিঙ্গা শরণার্থীকে টেকনাফের উনচিপাং এলাকার ২২ নম্বর ক্যাম্পে জড়ো করার পর তারা ‘ন যাইয়ুম, ন যাইয়ুম’ (যাব না, যাব না) স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। ওই ক্যাম্প থেকে আগামী তিন দিনে প্রত্যাবাসিত হওয়ার জন্য ২৯৮ রোহিঙ্গার একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছিল।

এদিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাষ্ট্রীয় অতিথিশালা পদ্মায় বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদুতদের সাথে বৈঠক শেষে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র আবুল হাসান মাহমুদ আলী এক ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশ কখনোই জোড় করে প্রাত্যাবাসনের পক্ষে না। তাই আপাতত স্থগিত।

জাপানের প্রস্তাব মোতাবেক শিগগিরই রোহিঙ্গা মাঝিদের সমন্ময়ে একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে মায়ানমার এর পরিবেশ পরিদর্শনে যাওয়া হবে বলেও জানান পররাষ্ট্র আবুল হাসান মাহমুদ আলী মন্ত্রী।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম জানান, তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গাদের কেউ যদি মিয়ানমারে যেতে চান, তাহলে তাকে ফেরত পাঠানো হবে।

গত বছরের আগস্টের শেষ দিকে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নিধন অভিযানের মুখে সাত লাখেরও বেশি সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমান পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন।

রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বলেন, সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধরা তাদের পরিবারের সদস্যদের হত্যা, ধর্ষণ ও বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে। জাতিসংঘ মিয়ানমারের এ অভিযানকে জাতিগত নিধনের জ্বলন্ত উদহারণ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে, তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গাদের কেউ বর্তমান পরিস্থিতিতে রাখাইনে ফিরে যেতে রাজি নয়।

ফলে সব প্রস্তুতি নেওয়ার পরও বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রত্যাবাসন শুরুর বিষয়টি অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে গেল।

বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী, রোহিঙ্গাদের দেড়শ জনের প্রথম দলটিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের পরিকল্পনা ছিল।

বাংলাটিভি/এমকে/এবি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close