বিএনপিরাজনীতি

সারাদেশে নেতাকর্মী গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে: রিজভী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ একক প্রচারণা চালালেও সারাদেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার (২৩ নভেম্বর) সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, ‘এর আগে পুলিশ কমিশনার বলেছিলেন, তফসিল ঘোষণার পরে গায়েবি মামলা দেওয়া হবে না। অথচ এখন অব্যাহতভাবে গায়েবি মামলা দায়ের করা হচ্ছে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। গতকালের বৈঠকে একজন নির্বাচন কমিশনার সারাদেশে পুলিশের দায়ের করা গায়েবি মামলা দায়েরের বিষয়ে তুমুল আপত্তি তুললেও সেটিকে গ্রাহ্য করা হয়নি।’

‘বৈঠকের কিছুক্ষণ আগে পুলিশের কিছু বিতর্কিত দলবাজ কর্মকর্তাদের একটি তালিকা বিএনপি’র একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে জমা দিলেও প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ তো গ্রহণ করেনইনি, বরং বৈঠকে উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তাদের আশস্ত করে বলেছেন, আপনাদের প্রতি আমাদের বিশ্বাস আছে। আপনারা আতঙ্কিত হবেন না,’— বলেন রিজভী।

রিজভী বলেন, ক্ষমতা লোভের পরবর্তী উত্তরাধিকার বজায় রাখতেই শেখ হাসিনা ও তার পুলিশের মন পিছুটানে টেনে রেখেছেন। সে জন্য শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রহরায় আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে বন্দি করার সব প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই সাজানো পুলিশের দাপটে দুঃশাসনের অন্ধকার থেকে জনগণের মুক্তি মিলবে না। জনগণ ভোট দিতে পারবে না, তাদের ইচ্ছার ঈপ্সিত ফল মিলবে না।

‘গতকালের বৈঠক ভোট নিয়ে জনমনে বিষন্নতা ও আতঙ্ক আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় ভোট, নির্বাচন ও গণতন্ত্রের মৃত্যু নেমে আসছে অতিদ্রুত।

রিজভী বলেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে হলে সমতল মাঠ তৈরি করতে হবে, বিতর্কিত ও দলবাজ পুলিশ কর্মকর্তা ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করতে হবে। নিরপেক্ষ কর্মকর্তাদের দিয়ে প্রশাসন সাজাতে হবে।

বাংলাটিভি/এসএম/এবি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close