জাতীয় নির্বাচনবাংলাদেশরাজনীতি

সারাদেশে উৎসবের আমেজে চলছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ

আজ ৩০ ডিসেম্বর। বাংলাদেশের ইতিহাসে অনুষ্ঠিত হচ্ছে একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। রাজধানীসহ সারা দেশে একযোগে শুরু হয়েছে নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। আজ রবিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। সারাদেশে ২৯৯টি আসনে ৪০ হাজার ১৮৩ টি কেন্দ্রে ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। এবারের নির্বাচনে ১ হাজার ৮৬১ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১০ কোটি ৪২ লাখ ৩৮ হাজার ৬৭৭ জন ভোটার এবার অংশ নিবে ভোট প্রদানে।

নির্বাচন কমিশনের পরিকল্পনা অনুযায়ী মেট্রোপলিটন এলাকায় সাধারন ভোট কেন্দ্রের পাহারায় থাকবেন ১৫ জন সদস্য। এসব এলাকার গুরুত্বপূর্ন ভোট কেন্দ্রগুলোয় পুলিশের সংখ্যা দুইজন বাড়িয়ে মোট ১৭ জন রাখা হবে।

মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরের সাধারন ভোট কেন্দ্রগুলোতে একজন পুলিশ, ১২ জন আনসার ও ২ জন গ্রাম পুলিশের সদস্য থাকবেন। গুরুত্বপূর্ন কেন্দ্রে দুইজন পুলিশ সদস্যসহ ১২ জন আনসার ও ২ জন গ্রাম পুলিশের সদস্য থাকবেন।

সেনাবাহিনী মোতায়েন হয়েছে ৩৮৯ উপজেলায়। গুরুত্বভেদে প্রতি উপজেলায় ২ থেকে ৩ প্লাটুন মোতায়েন হয়েছে। উপকূলীয় এলাকা ভোলা, কক্সবাজার, নোয়াখালী, বরগুনা, বাগেরহাটে নৌবাহিনীর ৫৫ প্লাটুন সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। জরুরি সময়ে হেলিকাপ্টার সাপোর্ট দেয়ার জন্য বিমান বাহিনীর সদস্যরাও প্রস্তুত আছেন।

এবারে নিবন্ধিত ৩৯টি দলই তাদের পছন্দের প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছে। দীর্ঘ ১০ বছর পর মুখোমুখি হতে যাচ্ছে, রাজনীতিতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ ও বিএনপি।
এর আগে, ভোটের দিন ভোটারদের কেন্দ্রে আসা ও বাড়ি ফেরা পর্যন্ত সব ধরনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে বলে জানান, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

ঢাকা শহরের সব গুরুত্বপনূর্ণ স্থাপনার নিরাপত্তার দাইয়ত্বে থাকবে র‌্যাব। বাংলাদেশ ব্যাংক, সচিবালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, যাদুঘরসহ এ ধরনের যত কেপিআই স্থাপনা রয়েছে, সে সকল স্থানে যেন কোন সহিংসতার ঘটনা ঘটতে না পারে এবং কেউ যেন কোন ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড চালাতে না পারে, সে জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

বাংলাটিভি/কায়েস

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close