আন্তর্জাতিক

মোজাম্বিকে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়, ১০০০ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা

ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ইদাইয়ের আঘাতে মোজাম্বিকে অন্তত এক হাজার মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট। তবে, আনুষ্ঠানিকভাবে এখন পর্যন্ত ৮৪ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। আহতের সংখ্যা দেড় হাজার। মোজাম্বিক ছাড়া ইদাইয়ের তাণ্ডবে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে জিম্বাবুয়ে ও মালাওই। জিম্ববুয়েতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৮ জন, নিখোঁজ ২১৭ জন। আর মালাওইতে মৃতের সংখ্যা ১২২।

ঘণ্টায় ১৭৭ কিলোমিটার বেগে বৃহস্পতিবার আঘাত হানে ইদাই। অবশ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ না থাকায় দুর্গত এলাকায় ত্রাণ তৎপরতা শুরু হয় রোববার। সেইসাথে বেরিয়ে আসতে থাকে ভয়াবহ সব তথ্য।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ভয়াবহতার কথা তুলে ধরেছেন মোজাম্বিকের প্রেসিডেন্ট ফিলিপে নিউসি। জানান, এই ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে অনেক বেগ পেতে হবে।

ঘূর্ণিঝড়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মোজাম্বিকের চতুর্থ বৃহত্তম শহর বিয়েরা। বৃষ্টি ও বন্যায় শহরের প্রধান সড়কগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে শহরের প্রায় ৫ লাখ বাসিন্দা। যোগাযোগ স্বাভাবিক করার আপ্রাণ চেষ্টা চলছে। এরই মধ্যে চালু হয়েছে বিমান যোগাযোগ। আগামী কয়েকদিন ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সোফালার গভর্নর আলবার্তো মন্ডলেন বলেন, এই মুহুর্তে ঘূর্ণিঝড়ের চেয়ে যা বড় হুমকি তা হলো অব্যাহত বৃষ্টি। ভারী বৃষ্টিতে পানির স্তর বিপদসীমা অতিক্রম করছে। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে নিম্নাঞ্চল।

ভয়াবহ ইদাইয়ের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড আফ্রিকার আরেক দেশ জিম্বাবুয়ে। ভারী বৃষ্টিতে বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে নদীর পানি। পরিস্থিতি মোকাবিলায় আরব আমিরাত সফর সংক্ষিপ্ত করে দেশে ফিরেছেন জিম্বাবুয়ের প্রসিডেন্ট এমারসন এমনানগাগওয়া।

ইদাইয়ের প্রভাবে বন্যার কবলে পড়েছে মালাওই। ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় মোজাম্বিক ও মালাওইকে অর্থ ও অবকাঠামোগত সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাজ্য।

 

বাংলাটিভি/রাজু

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close