অপরাধদেশবাংলা

সীমান্তে চোরাচালানের গরুর হাট বসিয়ে রাজস্ব ফাঁকি

সিলেটের কানাইঘাট সীমান্তে চোরাচালানের গরুর হাট বসিয়ে রাষ্ট্রের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাশাপাশি একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশ থেকে ৪শ ৫০ কোটি টাকা ভারতে পাচার এবং সাড়ে ৪ কোটি টাকা ঘুষ আদায়ের অভিযোগে সিলেটের এক ওসিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

সিলেটে ভারতের সীমান্তবর্তী একটি জনপদ কানাইঘাট। সীমান্তজুড়ে পাহাড়-জলাশয়। চোরাই পথে কানাইঘাটে প্রবেশ করছে ভারতের গরু।এখানে গড়ে ওঠেছে চোরাই গরুর জমজমাট হাট।

জকিগঞ্জ রোডে সড়কের বাজার। স্থানীয় সূত্র জানায়, ভারতের চোরাচালানের গরু বিকিকিনি হয় এই হাটে। ভারতের গরু-মহিষের পিঠে চোরাচালানিরা লাল দাগ বসিয়ে গরু নিয়ে আসে হাটে।

কানাইঘাট এলাকার একজন বাসিন্দা মইনুল হক বুলবুল। তিনি সিলেটের আদালতে এই হাটের চোরাচালানের ব্যাপারে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে কানাইঘাট থানার সাবেক ওসি আব্দুল আহাদকে এবং স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ ৮ জনকে।

তবে স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং ওসি আব্দুল আহাদ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এদিকে, গরু আটকে পুলিশের অনেক জটিলতার কথা জানালেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।

পুলিশ বলছে, আটককৃত চোরাই গরু থানায় রাখাটা বাড়তি ঝামেলা। তাৎক্ষণিক নিলামের ব্যবস্থা করা গেলে গরু চোরাচালান বন্ধ করা যাবে। শিগগিরই সেই বিকল্প নিয়ে ভাবছে পুলিশ।

কাইয়ুম উল্লাস, বাংলা টিভি, সিলেট

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close