অন্যান্যজনদুর্ভোগদেশবাংলাবাংলাদেশ

করোনায় প্রতিদিনই লকডাউন হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকা

সারাদেশের সঙ্গে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া রাজধানীতে জরুরি সেবা ব্যতীত প্রবেশ ও বাহির হওয়া নিষেধ রয়েছে। এছাড়া ক্রমেই রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকায় রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা লকডাউন ঘোষণা করা হচ্ছে।এতে প্রতিনিয়ত নতুন এলাকা যুক্ত হচ্ছে।

করোনারোধে কুমিল্লায় লকডাউন ঘোষনা করেছেন জেলা প্রশাসক মো:আবুল ফজল মীর। এক জেলাপ্রশাসক গণবিজ্ঞপ্তিতে জানান, জেলা কমিটির সভার সিদ্ধান্তে করোনার সংক্রমন ঝুঁকি মোকাবেলায় এ জেলাকে অবরুদ্ধ ঘোষণা করা হয়। আদেশ অমান্যকারির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও উল্লেখ করা হয়।

টাঙ্গাইলে, ৫ম দিনের মতো চলছে লকডাউন। লকডাউন কার্যকর করতে জেলায় ৫৪টি চেকপোষ্টে সর্বক্ষনিক পুলিশ নজরদারি করছে। পুলিশের পাশাপাশি র্যাব ও সেনাসদস্যরা কাজ করে যাচ্ছেন। তবে, আজো জেলার প্রধান কাঁচাবাজার পার্কবাজারে মানুষের উপচেপড়া ভীড় দেখা যায়।

মাদারীপুরের কালকিনিতে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যুতে উপজেলা প্রশাসন তার বাড়িটি লকডাউন করেছে। নিহতের বাড়ি কালকিনি উপজেলার রমজানপুর ইউনিয়নের চড়াইলকান্দি গ্রামে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আল-বিধান মোহাম্মদ সানাউল্লাহ জানান, গতকাল বিকেলে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হন এবং রাতে মারা যান।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির জানাজায় অংশ নেওয়ায় মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার পশ্চিম শিয়ালদি গ্রামের ১০ বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন। গতকাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশফিকুন নাহার ওই বাড়িগুলো লকডাউন ঘোষণা করেন।

করোনার উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ৪ জন ভর্তি হয়েছেন। তারা জ্বর,কাশি ও গলা ব্যথায় ভুগছেন। হাসপাতালের আরএমও ডাক্তার সুজাউদ্দৌলা রুবেল জানান, হাসপাতালে আসার পর তাদের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে এবং করোনা টেস্টের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এদিকে,চাঁদপুরে নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা ৫৯৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলায় ১ পুলিশ সদস্য ও হরিরামপুর উপজেলায় ১ প্রেস ব্যবসায়ী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনায় শিবালয়ের ৩টি ওয়ার্ডের ৮টি গ্রাম ও হরিরামপুরের ১টিসহ মোট ৯টি গ্রাম লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। গতরাতে সিভিল সার্জন আনোয়ারুল আমিন আখন্দ এতথ্য নিশ্চিত করেন। তাদের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরে আইইডিসিআর থেকে রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close