দেশবাংলা

সারাদেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা

ঢাকায় চিকিৎসাধীন সিলেটের এক চিকিৎসকসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে কয়েকজন মারা গেছেন। বিভিন্ন এলাকায় বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মানুষকে ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিন। ভোরে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  মারা যান তিনি।

করোনা উপসর্গ নিয়ে গতকাল রাতে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের ছরিলদা গ্রামে শাহিন মাতুব্বর নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি ১০দিন আগে ঢাকা থেকে বাড়ি আসেন।

শরীয়তপু‌রে করোনা উপসর্গ নি‌য়ে এক নৈশ প্রহ‌রির মৃত্যু হ‌য়ে‌ছে। গতরাতে ন‌ড়িয়া উপ‌জেলার ভে‌জেস্বর ইউ‌নিয়‌নের নিজ বা‌ড়ি‌তে তার মৃত্যু হয়। জেলা প্রশাসক কাজী আবু তা‌হের জানান, ক‌য়েক‌দিন ধ‌রে ওই বৃদ্ধ জ্বর,সর্দি,ও শ্বাসকষ্টে ভুগ‌ছি‌লেন।

একই ধরণের উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লার দেবীদ্বারে এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় রাতে উপজেলার বড়শালঘর গ্রামের বাড়ী লকডাউন করেছে প্রশাসন।

পিরোজপুরের দুই উপজেলার দুটি গ্রামে আরো তিন জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। গতরাতে সিভিল সার্জন ডা. মো: হাসনাত ইউসুফ জাকী বিষয়টি নিশ্চিত করে। এ নিয়ে জেলায় চার ব্যক্তির কোভিড-১৯ পজেটিভ পাওয়া গেলো । সনাক্ত হওয়া তিন ব্যক্তিই যুবক এবং তারা নারায়নগঞ্জ থেকে পিরোজপুরে এসেছে ।

ময়মনসিংহের ভালুকায় হবিরবাড়ীর ডোবালিয়া পাড়ার একটি চায়না কোম্পানীর শ্রমিকের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে রয়েছে। গতকাল বিকেলে উপজেলা প্রশাসন ডোবালিয়াপাড়া গ্রামকে লকডাউন ঘোষণা করেন।

দিনাজপুরে প্রথম করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে ৭জনের শরীরে। আক্রান্তদের মধ্যে  সদরের ৩জন, নবাবগঞ্জ উপজেলার ৩জন ও ফুলবাড়ী উপজেলা ১জন। এদের মধ্যে বেশিরভাগ ঢাকা, নারায়নগঞ্জ,গাজীপুর ফেরৎ।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close