অন্যান্যদেশবাংলা

টঙ্গীতে করোনা সন্দেহে রাস্তায় পড়ে রইলো নারীর লাশ

টঙ্গীতে করোনা সন্দেহে রাস্তায় পড়ে রইলো নারীর লাশ গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৫৪নং ওয়ার্ডের মোল্লাবাড়ি সড়কে ষাটোর্ধ নারীর লাশ পড়েছিল তারই বাড়ির সামনে মার্কেটের বারান্দায়। এ সময় এগিয়ে আসেনি সন্তানরা। রাস্তায় লাশ পড়ে থাকতে দেখে আতঙ্কিত লোকজন সরে গেছে যে যার মতো।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে মৃত নারীর নিজ বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। মৃত আমিরুন নেছা মৃত ইয়াকুব আলী মোল্লার স্ত্রী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম এবং স্থানীয় হাজী কছিমউদ্দিন ফাউন্ডেশনের ৩০ জন সদস্য। তারাই মৃত নারীর দাফনের আয়োজন করেন। মৃত আমিরুন নেছা টঙ্গীর আউচপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে একা বসবাস করতেন। ছেলে-মেয়েরা কেউই এখানে থাকেন না।

মঙ্গলবার রাতে নিজ বাড়ির সামনে থাকা একটি ঔষুধের দোকানে রক্তচাপ মাপতে গিয়ে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে রাস্তায় পড়ে মারা যান তিনি। তবে খবর পেয়ে মৃত নারীর শরীরে করোনাভাইরাস রয়েছে এমন সন্দেহে লাশ গ্রহণ করতে আসেনি ছেলে বিপুল ও স্বজনেরা।

পরে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি মেনে আজ বুধবার সকালে ওই নারীর দাফন করা হয়। কছিমউদ্দিন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইঞ্জি. এম এম হেলাল উদ্দিন জানান, অসুস্থ হয়ে একজন নারী রাস্তায় পড়ে আছে শুনে আমাদের স্বেচ্ছাসেবীরা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। মৃত নারীর ছেলে-মেয়ে ও স্বজনরা খবর পেয়েও মৃত নারীর শরীরে করোনা সন্দেহে লাশ গ্রহণ করতে আসেনি।

পরে আইইডিসিআরের সদস্যরা নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেলে আমাদের স্বেচ্ছাসেবীরা লাশ দাফন করেন। টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, মোঃ এমদাদুল হক স্বজনদের বরাত দিয়ে জানান, আমিরুন নেছা বার্ধক্যজনিত কারণে মারা গেছেন। তবে তিনি উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন। মৃত নারীর ছেলে-মেয়েরা খবর পেয়েও লাশ গ্রহণ করেনি।

বাংলাটিভি/টঙ্গী প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close