দেশবাংলা

সীমিত পরিসরে চলছে গার্মেন্টস কারখানা

বিজিএমইএ’র সিদ্ধান্তে অঞ্চলভিত্তিক সীমিত পরিসরে গার্মেন্টস খোলার ৩য় দিন চলছে। স্বাস্থ্য ঝুকির মধ্যে, নিরাপদ দূরত্ব মেনে বিভিন্ন কারখানায় কাজে যোগ দিয়েছে শ্রমিকরা। এসব কারখানার কর্তৃপক্ষ থেকে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করেই কাজ চালানো হচ্ছে। এদিকে, বকেয়া বেতনের দাবিতে মঙ্গলবারও বিভিন্ন জায়গায় পোশাক শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।

বাংলাদেশে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সমিতি-বিজিএমইএ সিদ্ধান্তে অঞ্চলভিত্তিক সীমিত পরিসরে গার্মেন্টস খোলা শুরু হয় রোববার থেকে আজ সকালেও শ্রমিকরা কারখানায় কাজে যোগ দিয়েছেন। পোষাককর্মীরা বলছেন, করোনাভাইরাসের মধ্যে গার্মেন্টস কারখানাগুলো খুলে দেয়ায়, স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যেই তাদেরকে কাজ করতে হচ্ছে।

তবে মালিকপক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করেই কারখানা খোলা হয়েছে। এদিকে, আজও বিভিন্ন পোশাক কারখানায় বকেয়া বেতনের দাবীতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে। বাংলাদেশে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সমিতি-বিজিএমইএ সিদ্ধান্তে শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ার বেশ কিছু গার্মেন্টস খুলে দেয়া হয়েছে।

সকাল থেকে শ্রমিকরা দলে দলে কারখানায় প্রবেশ করে উৎপাদন শুরু করেছেন। শ্রমিকরা বলছেন, করোনাভাইরাসের মধ্যে গার্মেন্টস কারখানাগুলো খুলে দেয়ায় তারা স্বাস্থ্য ঝুকি রয়েছে। শ্র্রমিকরা আরো জানায়, মোবাইল ফোনে তাদেরকে কাজে যোগদানের নির্দেশ দেন কারখানা কর্তৃপক্ষ, অন্যথায় তাদেরকে চাকুরীচ্যুত করা হবে, এ অবস্থায় গণপরিবহন বন্ধ থাকায় এবং অনেকটা বাধ্য হয়ে বকেয়া বেতন ও চাকুরী বাঁচানোর ভয়ে তারা পাঁয়ে হেটে কাজে যোগদান করেন।

এদিকে মালিকপক্ষের দাবি, নিরাপদ স্বাস্থ্যনীতি নিশ্চিত করেই তারা কারখানাগুলো খুলে দিয়েছেন। যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কারখানারগুলোর সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

বাংলা টিভি/রাসেল

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close