বিশ্ববাংলা

‘ইনভারমেকটিন’ ৯৫ শতাংশ করোনা প্রতিরোধ করবে: ডা. মাসুদ

ইনভারমেকটিন জেনেরিক নামধারী গ্রুপের ওষুধ প্রয়োগে এখনো পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ায় ৯৫ শতাংশ করোনা রোগী সুস্থ হয়েছে বলে জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত বাংলাদেশি চিকিৎসক ডা. মাসুদ। একটি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ ব্যাপারে বাংলাদেশের নাগরিকদের পরামর্শ দিয়েছেন।

সাক্ষাৎকারে তিনি আরো বলেন, ফাইলেরিয়াসিস এবং ডেঙ্গুর মতো মহামারির সময়ও এই ওষুধটি বেশ কার্যকারী ভূমিকা রেখেছিলো। তিনি জোর দিয়ে বলেন, করোনা উপসর্গ দেখা দেয়ার প্রথম সপ্তাহেই ডাক্তারের পরামর্শে এই ওষুধ সেবনের পর করোনা পরীক্ষা করলে অনেক বেশি সুফল পাওয়া যাবে। দ্বিতীয় সপ্তাহে সেবন করা ফলদায়ক হবে না বলেও তিনি দাবি করেন।

পরামর্শে তিনি বলেন ইনভারমেকটিন গ্রুপের স্ক্যাবো (৬ মি.গ্রা.) নামে বাংলাদেশের ডেল্টা ফার্মাসিউটিক্যালসের একটি ওষুধ রয়েছে যা ব্যবহার করা যেতে পারে। এ ওষুধ সেবনে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে উপসর্গ নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে তিনি দাবি করেন। বাংলাদেশে হঠাৎ শিল্পাঞ্চলে গার্মেন্টস শ্রমিক বেড়ে যাওয়া এলাকাগুলো খুব বেশি ঝুঁকিপূর্ণ।

গার্মেন্টস শ্রমিকদের এ ওষুধ সেবনের জন্যও তিনি পরামর্শ দেন। অস্ট্রেলিয়ার পর এবার আমেরিকাও ইনভারমেকটিন প্রয়োগ শুরু করেছে। ইনভারমেকটিনের সাথে এজিথ্রোমাইজিন সেবন করতে পরামর্শ দিয়েছেন ডা. মাসুদ। তবে যাদের হৃদরোগজনিত সমস্যা আছে তাদের এজিথ্রোমাইসিনের পরিবর্তে ডক্সিসাইক্লিন পরপর চারদিন সেবনের পরামর্শ দেন তিনি। তবে সেবনের পূর্বে অবশ্যই নিকটস্থ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে বলেছেন।

আগামী শীতের আগে ভ্যাকসিন আবিস্কার করা সম্ভব হবে না দাবি করে ডা. মাসুদ বলেন, ভ্যাকসিন আবিস্কারের চেষ্টা চলছে তবে আগামী শীতের আগে ভ্যাকসিন আবিস্কার করা সম্ভব নয়। তাই বাংলাদেশের মতো গরিব দেশের মানুষের জন্য এই ওষুধ অনেক বেশি কার্যকরী হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close