জনদুর্ভোগদেশবাংলা

করোনার প্রভাব পড়েছে মানিকগঞ্জের কাঁচা মরিচের পাইকারী বাজারে

করোনা সংক্রামণ রোধে দীর্ঘদিন বিমান চলাচল না থাকায় বন্ধ রয়েছে কাঁচা মরিচের রপ্তানি। যার প্রভাব পড়েছে মানিকগঞ্জের পাইকারি কাঁচা মরিচের বাজারে। বাম্পার ফলনের পরও, চাহিদা অনুযায়ী বাজারদর না থাকায়, ব্যাপক লোকসানে এ জেলার মরিচ চাষীরা।

মানিকগঞ্জের প্রতিটি উপজেলাতেই কমবেশি কাঁচা মরিচের আবাদ হয়েছে । তবে, জেলার ঘিওর,হরিরামপুর,শিবালয় ও দৌলতপুরে মরিচের চাষ হয়েছে বেশি। অনুকূল আবহাওয়া, আর উত্তম পরিচর্যায়, চলতি মৌসুমে মরিচের ফলনও হয়েছে ভালো। এবার জেলায় ৩ হাজার ৯’শ ১১ হেক্টর জমিতে মরিচের আবাদ হয়েছে। এতে ফলন হয়েছে ৬ হাজার ৪শ ৫৩ মেট্রিক টন মরিচ।

স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে দেশ বিদেশের বিভিন্ন বাজারে রপ্তানি হতো মানিকগঞ্জের কাঁচা মরিচ। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায়,প্রায় শূণ্যের কোটায় কাঁচা মরিচের রপ্তানি বাজার। যার প্রভাব পড়েছে স্থানীয় হাট-বাজারে। এতে লোকসানে রয়েছেন মানিকগঞ্জের মরিচ চাষীরা। লোকসান পোষাতে সরকারে যথাযথ উদ্যোগ চেয়েছেন, এর সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা। সরকারি বিশেষ ব্যবস্থায় বিদেশে মরিচ বপ্তানির ব্যবস্থা করা না হলে, লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে, আগামীতে মরিচ চাষে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারেন বলে জানান, মরিচ চাষীরা।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close