দেশবাংলা

মুজিবনগরে ভাস্কর্যের নাম ফলকে ভুল, বিভ্রান্তিতে পর্যটকরা

বাংলাদেশের স্বাধীনতার শুরুতেই গঠিত হয় অস্থায়ী মুজিবনগর সরকার। এই সরকারের কেন্দ্র ছিলেন জাতীয় চার নেতা।
মুজিবনগর সরকার শপথ নেয় ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের বৈদ্যনাথ তলা গ্রামে। অনুষ্ঠিত ওই শপথ অনুষ্ঠানের আদলে প্রায় ১০ বছর আগে নির্মাণ করা হয় ছয় নেতার ভাস্কর্য। এর পাশে রয়েছে একটি নামফলক।

এটা দেখে বতর্মান প্রজন্ম সহজেই বুঝতে পারে স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস ও নেতাদের অবদানের কথা। কিন্তু সেই নামফলকে রয়েছে ভুল, যা নিয়ে সুধী সমাজ ও মুক্তিযোদ্ধারা দুঃখ প্রকাশ করেছেন। ভাস্কর্যে ক্যাপ্টেন মনসুর আলী থাকলেও নামফলকে তার পরিচয় দেয়া হয়েছে এএইচএম কামারুজ্জামান। এএইচএম কামারুজ্জামানকে নামফলকে ক্যাপ্টেন মনসুর আলী বলা হয়েছে। দীর্ঘ নয় বছরেও এ ভুল সংশোধন হয়নি।

এ বিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস জানার অধিকার বাংলাদেশের সব নাগরিকের আছে। বিষয়টি শুনেছি। তবে আমি মনে করি এটা অনিচ্ছাকৃতভাবে হয়ে গেছে। তাই এটা দ্রত সংস্কারের প্রয়োজন এবং তা করতে হবে।

মুজিবনগরের স্থানীয় বাসিন্দা সোহাগ মন্ডল বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা আগের চেয়ে বেশি ঘুরতে আসেন। আর এসে ভাস্কর্যগুলো দেখে যুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে পারেন। তবে দীর্ঘদিন ভুলটির কোনো সংশোধন আমরা দেখতে পাইনি।

মেহেরপুরের স্থানীয় সিনিয়র সাংবাদিক রফিকুল আলম বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের যারা জাতীয় চার নেতার অবয়বের সঙ্গে পরিচিত নয়, তারা এই ভাস্কর্য দেখে বিভ্রান্ত হতে পারে। তাই এটা দ্রত সংশোধনের জন্য কৃর্তপক্ষের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।

মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুজন সরকার বলেন, এটা গণপূর্ত বিভাগ দেখাশোনা করে। তারপরও আমরা উপজেলা প্রশাসন থেকে সংশোধনের জন্য লিখিত আবেদন করেছি এবং এটি প্রক্রিয়াধীন।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ড.মুনসুর আলম জানান, বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে।এটি অনিচ্ছাকৃতভুল হয়েছে। তবে এমনভুলে নতুনপ্রজন্মের মানুষ বিভ্রান্ততে পড়বে এটিই স্বাভাবিক। তবে দ্রত সময়ের মধ্যে সংশোধনের কাজ চলছে।

আকতারুজ্জামান, মেহেরপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button