বাংলাদেশঅন্যান্য

গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে ডিজিটাল অর্থনীতি

দেশের উন্নয়নে ক্রমশঃই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে ‘ডিজিটাল অর্থনীতি’। বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের এক নিবন্ধে বলা হয়েছে, আউটসোর্সিংয়ের মধ্য দিয়ে অর্থনৈতিক খাতে নতুন বাংলাদেশের ভিত্তি রচিত হচ্ছে। শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠীর পাশাপাশি, নারীদের কর্মসংস্থানেও অনন্য অবদান রাখছে এই ইন্টারনেটভিত্তিক অর্থনীতি।

স্বাধীনতার পর বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে দাঁড় করাতে, দ্বিতীয় বিপ্লবের কর্মসূচি নিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কিন্তু তার সেই কর্মসূচি অসমাপ্তই থেকে যায়।

২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে যুগান্তকারী ডিজিটাল বিপ্লবের ঘোষণা দেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা, বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রচেষ্টায়, সরকারের সফল ডিজিটালাইজেশনের ফলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে মোবাইল ইন্টারনেটের পাশাপাশি, ছড়িয়ে পড়ছে ব্রডব্যান্ড সেবাও। এতে বিভিন্ন বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হয়ে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে আয়ের পথ সহজ হয় দেশের তরুণ-তরুণীদের।

সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী, তথ্য-প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার বলেন, সময়ের সাথে সাথে ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রও বদলে যাচ্ছে। তাই ফ্রিল্যান্সারদেরও সেভাবে বদলাতে হবে। চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নসহ, বিভিন্ন অবকাঠামোগত উন্নয়নে জোর দিচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশের তরুণদের প্রযুক্তি বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিয়ে ফ্রিল্যান্সিংয়ে আরও উদ্বুদ্ধ করতে পারলে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের আগ্রযাগ্রা আরও সহজ হবে। একই সঙ্গে, এ জনসম্পদকে কাজে লাগিয়ে বিশ্বের শীর্ষ ডিজিটাল অর্থনৈতিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে পারবে বাংলাদেশ।

আসাদ রিয়েল, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button