দেশবাংলাঅপরাধআইন-বিচার

বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক, পরিকল্পিতভাবে হত্যা

মাদারীপুরে ডাসারে বিয়ের প্রলোভনে শারিরীক সম্পর্কের পর বিয়ের জন্য চাপ দিতেই পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয় এক কিশোরীকে। এ ঘটনায় নিহতের ১১ মাস পরে কিশোরীর মরদেহ প্রেমিকের বাড়ির সেফটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের ঘটনায় অভিযুক্তের মা’সহ স্থানীয়রা অপরাধীর শাস্তি দাবী করেছে।

মাদারীপুরে ডাসার থানার পূর্ব বোতলা গ্রামের চাঁনমিয়া হাওলাদারের দশম শ্রেণি ছাত্রী মুর্শিদা আক্তারের সাথে একই গ্রামের মজিদ আকনের ছেলে সাহাবুদ্দিন আকনের প্রেমের সম্পর্ক হয়। এ সম্পর্কের সূত্র ধরেই একাধিক বার সাহাবুদ্দিনের সাথে শারিরীক সম্পর্ক হয়। এক পর্যায়ে বিয়ের চাপ দিলে হত্যা করা হয় মেয়েটিকে। পরে সাহাবুদ্দিন লাশ গুম করার জন্য বাড়ির সেফটিক ট্যাংকিতে ফেলে কংক্রিটের ঢালাই দিয়ে দেয়। ঘটনার ১১ মাস পর তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গত বছর ৪ মার্চ সাহাবুদ্দিনসহ ৫ জনকে আসামী করে অপহরণ মামলা করেন মুর্শিদার মা মাহিনুর বেগম। পরে মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশ তদন্তভার গ্রহন করে। এরপর মামলার আসামী সাহাবুদ্দিন আদালতে আত্মসমর্পনের পর হত্যাকান্ডে নিজের সম্পৃক্ততার বিষয় পুলিশের কাছে স্বীকার এবং লাশ গুম করার কথাও জানান। এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমুলত শাস্তি দাবী নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা।

খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত সাহাবুদ্দিনের মা হাসিনা বেগম নিজের ছেলের বিচার দাবী করেন। মামলাটি অতি দ্রুত নিস্পত্তি হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার। এ ঘটনায় দ্রুত বিচার হবে এমনটাই আশা এলাকাবাসীর।

বাংলাটিভি/দেশবাংলা

 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button