দেশবাংলা

কেরানীগঞ্জে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে স্ত্রীকে কুঁপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে, স্বামী সুমন মিয়ার বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতে, তেঘরিয়া এলাকার পশ্চিমদি গ্রামের মোল্লাবাড়িতে এ হত্যাকান্ড ঘটে।

নিহত জোৎস্না আক্তার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের জননী বলপেন ফ্যাক্টরিতে বই বাঁধাইয়ের কাজ করতেন। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, লাশের হাতে ও নিম্নাঙ্গে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ উদ্ধার কোরে, মিডফোর্ড হাসপাতাল মর্গে  পাঠানো হয়।

নিহত জোসনা আক্তারের বাবা জাফর হাওলাদার জানান ১৩ বছর পূর্বে ঘাতক সুমনের সাথে তার মেয়ের বিবাহ হয়। তাদের ঘরে লামিয়া (৭) ও সামিয়া (৩) নামে ২টি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই সুমন তার মেয়েকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করত। এনিয়ে এলাকায় একাধিকবার বিচার সালিশ হয়েছে। উপায়ন্তর না দেখে তার ভাড়াটিয়া বাড়ির পাশেই মেয়ে জোসনাকে বাসা ভাড়া নিয়ে দেয় সে।

তিনি খুব সকালে খবর পান যে সুমন তার মেয়কে অনেক মারধর করেছে। মেয়েকে দেখার জন্য তার বাসায় যাওয়ার পথে সুমন তার মাথায় শক্ত লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তার শাথা ফেঠে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এই সুযোগে সুমন তার দুইটি কন্যসন্তনসহ তার অটোরিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

নিহতের ছোট বোন হোসনা বেগম জানান, ঘাতক সুমন তার বোনকে ধারালো অস্ত্রদিয়ে এলোপাথারীভবে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। ঘাতক সুমন পেশায় ছিল একজন রাজমিস্ত্রি।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button