দেশবাংলা

রিপোর্ট ছুড়ে ফেললো ডাক্তার

চিকিৎসকের পছন্দের ক্লিনিকে টেষ্ট না করায় রোগীর রিপোর্টসহ ব্যবস্থাপত্র টেবিল থেকে ছুড়ে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিভাগের জুনিয়র কনসালট্যান্টের বিরুদ্ধে। এছাড়া ওই গাইনি চিকিৎসকের খারাপ আচরণে স্থানীয় সাধারণ রোগীরা অতিষ্ঠ।

চিকিৎসকের নাম ডাঃ সানজিদা পারভীন। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিভাগের জুনিয়র কনসালট্যান্ট। দিনের পর দিন ওই গাইনী চিকিৎসকের খারাপ আচরণে স্থানীয় স্বাস্থ্য সেবা প্রত্যাশীরা অতিষ্ট। কোন সমস্যার ব্যাপারে একাধীকবার জিজ্ঞাসা করলেই রেগে যান ওই গাইনী চিকিৎসক।

কখনো কখনো অশালিন বাক্য প্রয়োগও করেন তিনি। তবে এ ব্যাপারে অসংখ্যবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ করলেও কোন ফল পাওয়া যায়নি। বরং তিনি দিনের পর দিন বেশি বেপরোয়া হয়েছেন। চিকিৎসা সেবা প্রত্যাশীর এক নারীর সাথে এমনই ঘটনা ঘটেছে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগী এক নারী।

কান্না জড়িত কন্ঠে ওই রোগী বলেন, পছন্দের ক্লিনিকে টেষ্ট না করায় তার রিপোর্টসহ ব্যবস্থাপত্র টেবিল থেকে ছুড়ে ফেলে দেন গাইনী ডাক্তার। অভিযুক্ত ওই গাইনী ডাক্তার ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজী না হওয়ায় গোপন ক্যামেরায় তার বক্তব্য নেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বলেন, হাসপাতালে কোন টেষ্ট না থাকলে সেটা বাহিরের কোন ক্লিনিককে সুনির্দিষ্ট করে বলতে পারেনা ডাক্তাররা। বরং ভাল জায়গা থেকে পরীক্ষা করার পরামর্শ দেওয়া উচিত।

ডাক্তার রোগী এমন সম্পর্ক নয়, আরো বেশি ভাল হওয়া উচিত। ডাক্তারের আচরণ আরো বেশি ভাল হওয়া জরুরী। তাহলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা ডাক্তারের ব্যবহারেই অর্ধেক সুস্থ্য হয়ে উঠবে এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

রফিক সরকার, কালীগঞ্জ প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button