বিশ্ববাংলা

আমিরাতে সফল একজন প্রবাসী তরুণ ব্যবসায়ীর গল্প

কঠোর পরিশ্রম, সততা ও একনিষ্ঠতাই পারে একজন মানুষকে সাফল্যের দোড়গোরায় পৌঁছে দিতে। সংযুক্ত আরব আমিরাত আজমান প্রদেশের এমনি একজন সফল প্রবাসী তরুণ ব্যবসায়ীর গল্প নিয়ে এই প্রতিবেদন।

বরিশাল বিভাগের ঝালকাঠি উপজেলার বেশাইলখান গ্রামের এক উদ্যোমি তরুণ সাইফুল মোল্লা। ভাগ্য অন্বেশনে ২০১২ সালে পাড়ি জমান সূদুর সংযুক্ত আরব আমিরাতে। শুরু করেন গার্মেন্টস ব্যবসা। মূল লক্ষ্য হিসেবে নির্ধারণ করেন বাংলাদেশি পোশাক শিল্পকে বানিজ্যিক ভাবে বাহির বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়া। মাত্র নয় বছরে পরিচিতি লাভ করেন একজন সফল গার্মেন্টস ব্যবসায়ী হিসেবে।

কঠোর পরিশ্রম এর মাধ্যমে বর্তমানে সাইফুল মোল্লা আমিরাতের শারজাহ ও আজমান প্রদেশে তিনটি দোকান এর স্বত্তাধিকারী। তিনি অত্যন্ত গর্বের সাথে জানান ৫ জন কর্মচারী সংবলিত তার তিনটি দোকানেই তিনি শুধু মাত্র বাংলাদেশি পোশাক বিক্রয় করেন। তিনি বলেন আমিরাতে বাংলাদেশি পন্যের বিপুল চাহিদা রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, করোনাকালীন জটিলতায় আমিরাত সরকার বাংলাদেশীদের ভিজিট ভিসায় আমিরাতে এসে পরবর্তীতে স্থায়ী ভিসা ব্যবস্থার যে সুযোগ দিয়েছেন তারা তা ভোগ করতে পারছেন না বাংলাদেশের এয়ারপোর্ট কিছু অসাধু কর্মীর কারনে।

ভিসা সংক্রান্ত সমস্যা সমাধান ও এয়ারপোর্ট হয়রানি বন্ধ করা গেলে তিনি আরো বেশি বাংলাদেশীদের কর্মসংস্থান এর সুযোগ করতে পারবেন বলে তিনি জানান। সাইফুল মোল্লা এই বিষয়ে সরকারের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

শেখ ফয়সাল, আমিরাত প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button