দেশবাংলা

অর্ধশত বছরেও মেলেনি মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি

স্বাধীনতার অর্ধশত বছরেও স্বীকৃতি মেলেনি নোয়াখালীর মুক্তিযোদ্ধা জালাল আহম্মদের। তৎকালীন আনসার সদস্য, স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র নিয়েও দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তিনি। এ অবস্থায় হতাশা প্রকাশ করেছে, ঐ মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের জালাল আহম্মদ মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় আনসার সদস্য হিসেবে ঢাকায় কর্মরত ছিলেন। চাকরী ছেড়ে দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন তিনি। ২ নম্বর সেক্টরে জালাল আহম্মদের অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করে, মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক আতাউল গনী ওসমানী সাক্ষরিত মুক্তিযোদ্ধা সনদপত্র রয়েছে তার কাছে।

এছাড়া, জালাল আহম্মদের কাছে তৎকালীন রিলিফ কমিটি,আনসার কমান্ডার ও ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যায়নসহ বিভিন্ন দলিলাদি রয়েছে। সেই কাগজপত্রগুলো নিয়ে প্রশসনের বিভিন্ন দপ্তরে গিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না তিনি।

মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় স্বীকৃতি না পাওয়ায়, জালাল আহম্মদ ও তার পরিবার রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। কাগজপত্র নিয়ে মন্ত্রনালয়সহ বিভিন্ন দ্বারে ঘুরে হতাশ জালাল আহম্মদ। স্বীকৃতি পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তিনি।

একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে জালাল আহম্মদকে তালিকাভূক্ত করার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফিরোজ আলম ভূঁঞা। আর মুজিববর্ষে সরকার তার পাশে দাঁড়াবে এমনই প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।

 ইয়াকুব নবী, নোয়াখালী প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button