fbpx
দেশবাংলা

সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য সুরক্ষায় ৩ মাসের জন্য পর্যটক নিষিদ্ধ

সুন্দরবনের নদী–খালে মাছ ও বনে প্রাণীদের বিচরণ এবং প্রজনন কার্যক্রমের সুরক্ষায়,পয়লা জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত, টানা তিন মাসের জন্য বন্ধ হচ্ছে সুন্দরবনের দুয়ার। এসময় পর্যটক প্রবেশ, সাধারণ মানুষের চলাচলসহ, সুন্দরবনের নদী-খালে মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকবে। মোংলা প্রতিনিধি কামরুজ্জামান জসিমের পাঠানো প্রতিবেদন।

নিষেধাজ্ঞা সামনে রেখে গহীন সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে ফিরতে শুরু করেছেন, উপকূলীয় অঞ্চলের জেলে, বাওয়ালি ও মৌয়ালরা। বন বিভাগের তথ্যমতে, সুন্দরবনে মৎস্য সম্পদ রক্ষায়,সমন্বিত সম্পদ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনার সুপারিশ অনুযায়ী, ২০১৯ সাল থেকে প্রতিবছর পয়লা জুলাই থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত, দুইমাস সুন্দরবনের সব নদী ও খালে মাছ আহরণ বন্ধ থাকত। ২০২২ সালে মৎস্য বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করে, এ নিষেধাজ্ঞা একমাস বাড়িয়ে পয়লা জুন থেকে করা হয়।

বন বিভাগ ও মৎস্য অফিসের তথ্য অনুযায়ী, সুন্দরবনে এখন ২৫১ প্রজাতির মাছের প্রজনন মৌসুম। তাই বন বিভাগ থেকে জেলেদের জন্য সব ধরনের পারমিট বন্ধ রাখা হয়েছে।

পূর্ব সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্র এবং পর্যটনকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, সুন্দরবন ও এতে বিচরণকারী প্রাণী এবং বিভিন্ন খালের মাছ রক্ষায় এ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

সুন্দরবনের জলভাগে ২১০ প্রজাতির সাদা মাছ, ২৪ প্রজাতির চিংড়ি, ১৪ প্রজাতির কাঁকড়া রয়েছে। জুন থেকে আগস্ট এই তিন মাস প্রজনন মৌসুমে, সুন্দরবনের নদী ও খালে থাকা বেশির ভাগ মাছ ডিম ছাড়ে।

বাংলা টিভি / বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button