আওয়ামী লীগবাংলাদেশ

জাতীয় কাউন্সিলের আগেই তৃণমূলের সম্মেলন

 

জাতীয় কাউন্সিলের আগেই তৃণমূলের সব পর্যায়ে সম্মেলন শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে আওয়ামী লীগ। একইসাথে এক সপ্তাহের মধ্যে সদস্য সংগ্রহের অগ্রগতি এবং দলের নিজস্ব কার্যালয়ের তথ্য জানাতে বলা হয়েছে।
আসছে অক্টোবরে জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। তার আগেই দলের তৃণমূলকে গোছানোর চেষ্টা চলছে। বিশেষ নজর মেয়াদোত্তীর্ণ বা দীর্ঘদিন সম্মলেন না হওয়া কমিটিগুলোর দিকে। জরুরি বার্তায় তাগিদ দেয়া হয়েছে দ্রুত সম্মেলন করার।

তবে, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান জাতীয় সম্মেলনর সাথে জেলা উপজেলা সম্মেলনের কোন সম্পর্ক নেই বলে জানান। জাতীয় সম্মেলন অক্টোবরে হবে, এই টার্গেটকে ধরে যদি করতে হয়, তাহলে অবশ্যই আমাদের চিহ্নত করতে হবে, কোন কোন জায়গা গুলোতে সম্মেলন করা খুব জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে। সুতরাং সেই লক্ষ্য নির্ধারণের জন্যই আমরা এই চিঠিটি পাঠিয়েছি।’

দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন কাউন্সিলের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানান, ‘দলের স্থায়ী কার্যালয় করা, এটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দ্বিতীয়ত, আমাদের কাউন্সিলটাকে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সময়মত করা। আর পূর্ব প্রস্তুতি হিসাবে সদস্য সংগ্রহ অভিযান সম্পন্ন করা।’

২০১৭ সালে সাড়ম্বরে দলের সদস্য সংগ্রহ অভিযান উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু জাতীয় নির্বাচনের জোয়ারে তা অনেকটাই স্থিমিত। তৃণমূলকে সদস্য সংগ্রহের সবশেষ তথ্যসহ জানাতে বলা হয়েছে আরও কিছু তথ্য।

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, ‘আমরা কেন্দ্রীয় চিঠি ইতিমধ্যেই পেয়েছি এবং সেই চিঠির মর্ম উপলব্ধি করেই প্রতিটি সংগঠনকে সেভাবেই মৌখিক ভাবে বলেছি। আমরা লিখিত ভাবেও জানাবো।’

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক জাতীয় সম্মেলনের আগে দলকে আরও সুসংগঠিত করা প্রসঙ্গে বলেন, ‘ওয়ার্ড কমিটি, ইউনিয়ন কমিটি, থানা কমিটি এগুলো যথাযথ বিধি মোতাবেক আমরা সংগঠিত করেছি।
তবে দলটির নেতারা বলছেন কেন্দ্রীয় সম্মেলনের আগে তৃণমূলের সব কমিটি শেষ করা সম্ভব নাও হতে পারে।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close