আওয়ামী লীগরাজনীতি

চার ক্যাটাগরিতে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে রাজধানীর হোটেল ও রেস্তোরাঁগুলোকে

শুধু আইন করে নয় সচেতনতাই পারে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে, জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। হোটেল রেস্তোরা, বেকারী ও মিষ্টির কারখানার গ্রেডিং প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময়, পুষ্টিমান খাবারের পাশাপাশি ভেজালমুক্ত খাবার নিশ্চিতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বলেও জানান তিনি।

রেস্তোরাঁয় সবুজ স্টিকার দেখলে বুঝতে হবে এখানকার মান এ প্লাস অর্থাৎ উত্তম। আর মান খারাপ হলে থাকবে কমলা রংয়ের স্টিকার। ভোক্তা ও ভোজনরসিকদের স্বার্থে জানুয়ারি মাসে এ+, এ, বি, সি চার ক্যাটাগরিতে তালিকাভুক্ত করা হয় রাজধানীর হোটেল ও রেস্তোরাঁগুলোকে।

খাবারের মান, বিশুদ্ধতা, পরিবেশ, ডেকোরেশন, মনিটরে রান্নাঘরের পরিবেশ দেখা যাওয়ার ব্যবস্থা ও ওয়েটারদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রাজধানীর একটি হোটেলে এক অনুষ্ঠানে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে স্টিকার দেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। এ সময় নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে সরকারের পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন তিনি।

২০৪১ সালের আগেই দেশে নিরাপদ খাদ্যে রূপান্তরিত করা যাবে বলেও মন্তব্য করেন, সাধন চন্দ্র মজুমদার। এছাড়া জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের সাথে সাথে নিরাপদ খাবার এখন সবার অন্যতম দাবি বলেও মন্তব্য করেন খাদ্যমন্ত্রী।

মাসুদ সুমন, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close