আওয়ামী লীগবাংলাদেশমুজিববর্ষ

১০ জানুয়ারি থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের ক্ষণগণনা

কাল ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। দিনটিকে আরও স্মরণীয় করে রাখতে কাল শুরু হচ্ছে, জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের ক্ষণগণনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয়ভাবে আগামী কাল বিকেলে তেজগাঁও পুরাতন বিমানবন্দরে মুজিব বর্ষের কাউন্টডাউন অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। এরপর প্রতিটি জেলা, উপজেলা ও সকল পাবলিক প্লেসে একইসঙ্গে কাউন্টডাউন শুরু হবে। মুজিববর্ষে বছরব্যাপী থাকবে নানা আয়োজন।

১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি, পাকিস্তানে দীর্ঘ নয় মাস কারাবাস শেষে বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ফিরে আসেন তাঁর স্বপ্নের স্বাধীন বাংলাদেশে। জাতির জনক নিজেই তাঁর এ স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে আখ্যায়িত করেছিলেন ‘অন্ধকার হতে আলোর পথে যাত্রা’ হিসেবে। মাতৃভূমিতে বঙ্গবন্ধুর আগমনের দিনটি বাঙালী জাতির জন্য একটি বড় প্রেরণা হিসাবে কাজ করেছে।

বিশেষ এই দিনটি এবার যেন আরও বিশেষ, কারণ ১০ জানুয়ারি থেকেই শুরু হচ্ছে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালীর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের ক্ষণগণনা। স্বাধীনতার পর দেশে প্রথম যেখানে অবতরণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু ঠিক সে স্থানেই হবে এর মূল আয়োজন। উদ্বোধন করবেন, তারই সুযোগ্য কন্যা রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উন্মোচন করবেন মুজিববর্ষের লোগো।

ক্ষণগণনার জন্য সারা দেশের ১২টি সিটি করপোরেশনের ২৮টি পয়েন্টে, বিভাগীয় শহরগুলোতে, ৫৩ জেলা, দুই উপজেলা এবং রাজধানীতে মোট ৮৩টি পয়েন্টে বসানো হবে কাউন্টডাউন ঘড়ি।  সারা দেশে বসানো ডিজিটাল ঘড়ির সময় জানাবে, আসছে ১৭ ই মার্চ জাতির পিতার একশোতম জন্মদিন।

আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মগ্রহণের শততম বছর পূর্ণ হবে। ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এই জন্ম শতবর্ষ উদযাপন করবে বাংলাদেশ।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close