বিনোদন

স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণে চ্যালেঞ্জ

কোভিড পরিস্থিতিতে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশের উত্তরণে, সময় বাড়ানোর সুযোগ নেয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা মনে করছেন, উত্তরণ পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকবিলার প্রস্তুতিতে এখনও বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে। তাই, সময় বাড়ানোর সুযোগটি কাজে লাগিয়ে চ্যালেঞ্জের জন্য তৈরি হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

লিস্ট ডেভেলপমেন্ট কান্ট্রি বা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের তিনটি শর্তই পূরণ করেছিল বাংলাদেশ। কিন্ত করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকেই আলোচনা চলছিল এই মুহূর্তে এ উত্তরণ দেশের জন্য ঠিক হবে কি-না।

শেষ পর্যন্ত গেল ১২ জানুয়ারি এলডিসি থেকে উত্তরণের সময় দুই বছর বাড়ানোর আবেদন করে বাংলাদেশ।  অর্থাৎ ২০২১ সালে বাংলাদেশ শর্ত পূরণ করলেও ২০২৪ সালের বদলে ২০২৬ সালে এর উত্তরণ ঘটবে।

অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন, এলডিসি থেকে উত্তরণ হলে স্বাভাবিকভাবে বাংলাদেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা হারাবে। এ ক্ষেত্রে তৈরি পোশাক খাতসহ আরও অনেক ক্ষেত্রেই বেশ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে। তবে শুধু সময় বাড়ালেই চলবে না- একে কার্যকরভাবে ব্যবহার করতে হবে বলেও, মত অর্থনীতিবিদদের।

এদিকে, বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো এলডিসি গ্র্যাজুয়েশনের জন্য সব মানদণ্ড পূরণ করেছিল ২০১৮ সালে। সে সময় জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপির) সর্বশেষ ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনায় এলডিসি গ্রাজুয়েশনের সুপারিশ লাভ করে বাংলাদেশ।

আগামী ফেব্রুয়ারিতে সিডিপির পরবর্তী পর্যালোচনায় স্নাতকের জন্য পাঁচ বছরের প্রস্তুতিকালীন মেয়াদ পেলে ২০২৬সালে আনুষ্ঠানিকভাবে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটবে বাংলাদেশের।

আসাদ রিয়েল, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button