দেশবাংলা

ভাসমান পদ্ধতিতে চারা উৎপাদনে নেই সরকারি সহযোগীতা

ইমাম হোসেন, পিরোজপুর : দেশের সবচেয়ে বেশি জমিতে ভাসমান পদ্ধতিতে সবজি চারা উৎপাদন হয় পিরোজপুরের নাজিরপুর ও নেছারাবাদ উপজেলায়। আর এ পদ্ধতিতে এলাকার মানুষ চাষাবাদ করে আসছে শত বছরেরও বেশি সময় ধরে। তবে দিনদিন উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পাওয়ায় চাষীরা আগের মতো লাভ করতে পারছেন না। এমনকি মিলছে না সম্ভাবনাময় এ কৃষি ক্ষেত্রে কোন প্রকার সহযোগীতা। ফলে অনেকটাই হতাশ হয়ে পড়েছে এ এলাকার চাষীরা।

শত বছরের বেশি সময় ধরে পিরোজপুরের নাজিরপুর ও নেছারাবাদ উপজেলায় ভাসমান পদ্ধতিতে উৎপাদন হচ্ছে সবজির চারা। এসব চারাই দেশের সিংহভাগ চাহিদা পূরণ করে। আর এর মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে বিলাঞ্চলের কয়েক হাজার চাষীর।

স্থানীয় চাষীরা জানান, দিনদিন উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পাওয়ায় আগের মতো আর লাভ হচ্ছে না। পাচ্ছি না কোনো সরকারি সহযোগীতাও। বিভিন্ন ব্যক্তি ও এনজিও’র কাছ থেকে চড়া সুদে ঋণ নিয়ে কোনমতে এই উদ্যোগ টিকিয়ে  রেখেছি আমরা।

এসব বিলাঞ্চলে কচুরিপনা দিয়ে তৈরি করা হয় ভাসমান বেড। আর চাষাবাদে বিশেষ অবদান রয়েছে স্থানীয় নারীদেরও।

এদিকে, ভাসমান চাষাবাদ পদ্ধতি নিয়ে চাষীদের বিভিন্নভাবে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলে জানান জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবু হেনা মোঃ জাফর ।

এ পেশার সাথে প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে জড়িত কমপক্ষে ১৫ হাজার চাষী। নিজেদের আর্থিক সুরক্ষায় সরকারি সহায়তার দাবি জানিয়েছেন তারা ।

বাংলাটিভি/ এসনূর

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close