আন্তর্জাতিক

করোনা: বিশ্বজুড়ে একদিনে ৬ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়ালো ২ লাখ। একদিনে প্রাণ গেছে ছয় হাজারেরও বেশি মানুষের। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে এখন ২৯ লাখেরও উপরে। এরই মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় সাড়ে ৮ লাখের মতো মানুষ।

চীনের উহান শহর থেকে উৎপত্তি হওয়া করোনাভাইরাসের প্রকোপ যে এতোটা ভয়াবহ হবে তা ভাবেনি কেউ। ডিসেম্বর থেকে হিসেব করলে, প্রথম ৯০ দিনে করোনায় মৃত্যু হয়েছে এক লাখ মানুষের। তারপরেই বিশ্বজুড়ে নিমেষে লম্বা হয়েছে মৃত্যুর মিছিল। পরবর্তী একলাখ মৃত্যু সংখ্যা গুণতে সময় লেগেছে মাত্র ১৫ দিন।

এই পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যার চারভাগের একভাগই যুক্তরাষ্ট্রের দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৫৪ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় প্রাণ হারান দুই হাজার ৬৫ জন। এরমধ্যে রয়েছে চার বাংলাদেশির নাম। এ নিয়ে দেশটিতে ১৯৯ বাংলাদেশির মৃত্যু হলো। এর আগে, গত শুক্রবার নিউইয়র্কের এস্টারিয়ায় তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়।

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউরোপের দেশ ইতালি। দেশটিতে ৪১৫ জন মারা গেছেন একদিনে, মোট প্রাণহানি ২৬ হাজারের বেশি। স্পেনে মৃতের সংখ্যা প্রায় ২৩ হাজার। ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩৭৮ জন। ফ্রান্সে মোট মৃতের সংখ্যা ২২ হাজারের উপরে। নতুন প্রাণহানি ৩৬৯ জনের। যুক্তরাজ্যে নতুন ৮১৩ জনসহ মোট প্রাণহানির সংখ্যা ছাড়ালো ২০ হাজারের কোঠা। তবে করোনায় সবচেয়ে বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি আক্রান্ত হয়েছেন সিঙ্গাপুরে। দেশটিতে আক্রান্ত ১০ হাজারের প্রায় অর্ধেকই বাংলাদেশি।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনেকটাই সামলে নিয়েছে চীন। গত ১০ দিনে কারো মৃত্যু হয়নি। দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, করোনার উৎপত্তিস্থল উহানে একদিনে মাত্র ১১ জন নতুন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে পাঁচজনই দেশের বাইরের এবং বাকি ছয়জন হেইলংজিয়াং ও গোয়াংডং প্রদেশের। চীনে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৮২ হাজার ৮১৬ জন।

এদিকে, করোনাভাইরাস থেকে যারা সুস্থ হয়েছেন, তাদেরকে ঝুঁকি মুক্ত হওয়ার সার্টিফিকেট দেয়া উচিত হবে না বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটি বলছে, আক্রান্ত ব্যক্তি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভাল থাকায় সুস্থ হয়ে উঠলেও দ্বিতীয়বার আক্রান্ত হবেন না, এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। তাই সতর্কতা মেনে চলার আহবান জানানো হয়েছে।

বাংলা টিভি/রাসেল 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close